1. admin@upokulbarta.news : admin :
শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১০:৪০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
লালমোহন পশ্চিম চর উমেদ ইউপি নির্বাচন শিক্ষার মানোন্নয়ন করতে চান চেয়ারম্যান প্রার্থী অধ্যক্ষ সেলিম নারীর গুণ – আঃ সামাদ দৌলতখানে যুব রেড ক্রিসেন্টে দলনেতা মাশরাফি উপ-নেতা ইমতিয়াজ ও রহিমা মোংলায় ৫ শতাধিক চক্ষু রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান শরণখোলা ও মোরেলগঞ্জে বাংলাদেশ কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের জনসচেতনতা ও বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান দখল-দূষণে অস্তিত্ব সংকটে ঠাকুরানী খাল পরিচ্ছন্ন অভিযানে পৌর মেয়র আ. রহমান জনপ্রিয়তার শীর্ষে ও প্রচারণায় এগিয়ে সাবেক মেয়র ডাঃ শফিক ফকিরহাটে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক সভা অনুষ্ঠিত ভোলায় ৬ বেসরকারি ক্লিনিক ও হাসপাতালে সিলগালা আমি আপনাদের ভালোবাসার কাছে ঋণী- কেসিসি মেয়র আ: খালেক

মেঘনায় নৌ-পুলিশ গুলিতে নিহত জেলে পরিবারের মাঝে গণঅধিকার পরিষদের আর্থিক সহয়তা প্রদান

আশিকুর রহমান শান্ত
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২৬ এপ্রিল, ২০২২
  • ৭৯১ বার পঠিত

 ভোলা প্রতিনিধিঃ

ভোলায় গণঅধিকার পরিষদের সহযোগিতায় এবং ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদ ভোলা জেলা শাখার বাস্তবায়নে গত ১০ এপ্রিল মেঘনা নদীতে জেলে ও পুলিশের সংঘর্ষে নিহত আমির রাঢ়ী এবং আহত ও কারাবন্দী জেলে পরিবারের মাঝে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (২৫ এপ্রিল) বিকেলে ভোলার শহরের কর্ণফুলী টাওয়ারের তৃষ্ণা রেস্টুরেন্টে এই অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। এসময় নিহত আমির রাঢ়ীর ও আহত ১০ জেলে পরিবারের হাতে নগদ অর্থ তুলে দেন গনঅধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় নেত্রীবৃন্দ।

বাংলাদেশ গন-অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় সংসদের সহকারী সদস্য সচিব আরিফ হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ গন-অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় সংসদের যুগ্ম আহ্বায়ক কৃষিবিদ মো. শহিদুল ইসলাম ফাহিম, বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ ভোলা জেলা শাখার সভাপতি আসমাউল হুসনা হ্যাপি, উপকূল প্রেসক্লাবের কেন্দ্রীয় সদস্য সচিব জয়নাল আবেদীন ফরাজি, যুব অধিকার পরিষদে নেতা গাজী ইমরান প্রমূখ। কেন্দ্রীয় গনঅধিকার পরিষদের নেতা সামির ফারজীর সার্বিক সহযোগিতায় উক্ত অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, গনঅধিকার পরিষদের নেতা আরিয়ান আরমান, ইমরান তাহেরসহ প্রমুখ।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ছাত্র অধিকার পরিষদে নেতা আজিজ রায়হান। উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, নদীতে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার আগে সরকারের উচিত শতভাগ জেলেদের প্রণোদনা দেওয়ার ব্যবস্থা করা। প্রণোদনা না পেয়ে জেলেরা পেটের দায়ে নদীতে মাছ ধরতে নামতে বাধ্য হয়। যদি প্রকৃত জেলেদের মাঝে খাদ্য সহয়তা দেওয়া হতো তাহলে জেলেরা নদীতে আর নামতো না আর ১০ এপ্রিলের ঘটনাটি ও ঘটতো না। বক্তারা আরো বলেন, নৌ-পুলিশ কোন আইনের বলে সাধারণ জেলেদের গায়ে গুলি চালায় তা আমাদের বোধগম্য নয়।

সরকারের কাছে আমরা এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবী করছি। এবং নৌ-পুলিশের খাম খেয়ালীপনার কারণে আজ একটি প্রাণ ঝড়ে গেলো , একটি পরিবার হারালো তাদের একমাত্র উপার্জন করার ব্যক্তিকে। এই নৌ-পুলিশের বিরুদ্ধে নদীতে চাঁদাবাজির অসংখ্য অভিযোগ হয়েছে। অতএব সরকার কে বলবো এর বিরুদ্ধে এখনই যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া জন্য।

নয়তো ভবিষ্যতে এরকম ঘটনা আরো ঘটনাবে তারা। উল্লেখ্য, ১০ এপ্রিল রাতে লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার মজুচৌধরীর ঘাট এলাকায় মেঘনা নদীতে নৌ-পুলিশের সঙ্গে জেলেদের সংঘর্ষে পুলিশের গুলিতে আমির হোসেন রাঢ়ী (৩০) নামের একজন জেলে নিহত হন। নিহত আমির হোসেন রাঢ়ী ভোলা সদরের রাজাপুর ইউনিয়নের চর মোহাম্মদ আলী গ্রামের ছেলে। উক্ত ঘটনায় আরও ১০ জন জেলে আহত হয়েছেন।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা