1. admin@upokulbarta.news : admin :
  2. bangladesh@upokulbarta.news : যুগ্ম সম্পাদক : যুগ্ম সম্পাদক
  3. bholasadar@upokulbarta.news : বার্তা সম্পাদক : বার্তা সম্পাদক
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৯:২৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ধলীগৌরনগর ইউপি নির্বাচনে মঞ্চ লুঙ্গী পড়া মানুষের জন্য বিশাল পথসভায় নেহাল পাটোয়ারী ভাইস চেয়ারম্যান থেকে চেয়ারম্যান হলেন ইউনুস, ভোলার ৩ উপজেলায় নির্বাচন সাতক্ষীরার ইছামতি নদীতে ভারতীয় নাগরিকের মরদেহ উদ্ধার! রাজশাহীতে পুষ্টি বিষয়ক মাল্টি সেক্টরাল সমন্বিত কর্মশালা অনুষ্ঠিত রামপালে মেধাবী অন্বেষণ কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত রামপালে গলায় ফাঁস দিয়ে যুবক যুবতীর আত্মহত্যা ধলীগৌরনগর ইউপি নির্বাচন- সুখেদুঃখে মানুষের পাশে থাকবেন সংরক্ষীত সদস্য প্রার্থী নাসিমা লালমোহন উপজেলা নির্বাচন২৪ নির্বাচিত হলে বদরপুরে সবচেয়ে বেশি উন্নয়ন করবো-প্রার্থী আকতার হোসেন বোরহানউদ্দিনে উপজেলা চেয়ারম্যান ‘‘জাফর উল্লাহ’, ভাইস চেয়ারম্যান ‘হীরা’’ উপজেলা নির্বাচনে নির্বাচিত হলে বদরপুরে সবচেয়ে বেশি উন্নয়ন করবো-প্রার্থী আকতার হোসেন

কোরবানির পশুর হাটে ক্রেতা বিক্রেতা কেউ খুশি নয়

আহসান টিটু, বাগেরহাট :
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২৭ জুন, ২০২৩
  • ১৯৩ বার পঠিত

বাগেরহাটের ফকিরহাট ও তার আশে পাশে কোরবানির হাটে প্রচুর সংখ্যক গবাদি পশু উঠেছে। ক্রেতা বিক্রেতাদের হাঁক ডাকে সরগরম পশুর হাট। বিক্রিও হচ্ছে বিভিন্ন আকারের গরু ছাগল। তবে ক্রেতা বিক্রেতা কেউ খুশি নয়।

জেলার সবচেয়ে বড় কোরবানির পশুর হাট বেতাগা এবং পাশ্ববর্তী লখপুর ও ফয়লা পশুর হাট ঘুরে দেখা যায় এই চিত্র। ক্রেতা বিক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, গতবছরের তুলনায় এবছর পশুর দাম অনেক বেশি। বাজেটে মধ্যে কোরবানির পশু কিনতে গিয়ে সাধারণ মানুষ হিমশিম খাচ্ছেন। ফলে বড় ও মাঝারি গরুর চেয়ে ছোট গরুর চাহিদা অনেক বেশি। অন্যদিকে বিক্রেতাদের দাবী গো-খাদ্য ও অষুধের দাম বৃদ্ধির ফলে বছর জুড়ে তাদের যে পরিমান অর্থ ব্যয় হয়েছে তার চেয়ে কম টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে পশু। ফলে লোকসানের মুখে পড়তে হচ্ছে তাদের।

ব্যাপারীরা বলছেন, গত বছর কোরবনির গরু আনুমানিক ২৫ থেকে ২৮ হাজার টাকা মণ ধরে বিক্রি করা হয়েছিল। এবার তা ৩৩ থেকে ৩৫ হাজার টাকা মণ ধরে দাম চাওয়া হচ্ছে। দরদামের মাধ্যমে দাম একটু কম বেশি হতে পারে। তবে গত বছরের তুলনায় এবার মণপ্রতি ৬ থেকে ৭ হাজার টাকা বেশি দিয়েই কোরবানির গরু কিনতে হচ্ছে বলে একাধিক ক্রেতা জানান।

পশুরহাটে ঘুরে দেখা গেছে, ভোর রাত থেকে ট্রাক, কাটা টেম্পু, নসিমন, করিমন ও ভটভটি বোঝাই করে গরু নিয়ে এসেছেন খামারি ও ব্যাপারীরা। বেলা বাড়ার সাথে সাথে ক্রেতারা ভিড় করতে থাকেন। তবে গত বছরের তুলনায় ক্রেতার সংখ্যা কম বলে জানিয়েছে গরুর ব্যাপারীরা। গরুর পাশাপাশি ছাগলের চাহিদাও রয়েছে হাটগুলোতে।

গরুর হাটের ইজারা গ্রহণকারী বেতাগা ট্রেডার্সের পরিচালক আনন্দ দাশ জানান, ব্যাপারীরা বিভিন্ন জেলা থেকে এখানে কোরবানির পশু নিয়ে আসেন। বোতাগা ও লখপুর পশুরহাটে ক্রেতা-বিক্রেতাদের নিরাপত্তায় পুলিশ প্রশাসনের পাশাপাশি ভলেন্টিয়ার টিম রয়েছে। জাল টাকা পরীক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। কোরবানির পশুর হাটে গবাদিপশু স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকল্পে ভেটেরিনারি মেডিকেল টিম কাজ করছে। এছাড়া পশু বিক্রির টাকা নিয়ে গন্তব্যে যেতে কারেও কোন সমস্যা হলে তাৎক্ষণিকভাবে হাট ব্যবস্থাপনার সাথে সংশ্লিষ্ট টিমকে জানানোর পরামর্শ প্রদান করেন।

ফকিরহাট উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা মো. জাহিদুর রহমান বলেন, উপজেলায় এবার ১০ হাজার কোরবানির জন্য পশুর চাহিদা রয়েছে। ফকিরহাটে ছোট বড় এক হাজার খামারি প্রায় ১৩ হাজার পশু কোরবানির জন্য প্রস্তুত করেছে। এছাড়া হাটগুলোতে দুরবর্তী অঞ্চল থেকেও কোরবানির পশু আসে। পশুরহাটে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কার্যালয়ের পক্ষ থেকে গবাদিপশুর স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকল্পে ভেটেরিনারি মেডিকেল টিম কাজ করছে।#

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা