1. admin@upokulbarta.news : admin :
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১১:৪৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ভেদুরিয়া চরকালী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ফান্ডের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ প্রধান শিক্ষক সিরাজুল ইসলাম এর বিরুদ্ধে ভেদুরিয়ায় নবগঠিত ইউনিয়ন কমিটির আনন্দ মিছিলে দুষ্কৃতিকারীদের অতর্কিত হামলার অভিযোগ লালমোহনে স্বামী কর্তৃক স্ত্রী নির্যাতনের অভিযোগ আরডিএ’র নির্বাহী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে ২শ ৬ কোটি টাকার কাজে অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সুস্থ স্বাস্থ্যের জনশক্তি হিসেবে গড়ে তুলতে হবে সিদ্ধিরগঞ্জ,চৌধুরী বাড়ী বাইতুল মা’মুর জামে মসজিদের পুনঃনির্মান ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধন মোহনপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী ও মহান বিজয় দিবস উদযাপনে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত পটুয়াখালীতে স্কুল ঝড়ে পড়া ১৭ হাজার শিশুদের শিক্ষা কার্যক্রম শুরু জেলে পরিবারের নারীদের অধিকার আদায়ে ভোলায় নেটওয়ার্কিং প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত রাস্তা কেটে বরযাত্রীকে আটকে দেওয়া আলোচিত সেই মেম্বার এর নেতৃত্বে জমি দখলের অভিযোগ, সংঘর্ষ, আহত-১

ভোলার বোরহানউদ্দিনের মাদ্রাসায় পড়ুয়া ছাত্রীকে ছাড়পত্র দিয়ে বের করে দেওয়ার অভিযোগ

উপকূল বার্তা ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৩০ বার পঠিত

মিলি সিকদারঃ

ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার কাচিয়া ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসায় ৮ম শ্রেণিতে পরুয়া ছাএী নাজমা বেগমকে বরখাস্ত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত ১৪-০৯-২০২২ ইং তারিখে মাদ্রাসা চলা কালীন সময়ে নিজের কিছু জমানো টাকা দিয়ে মনিরাম বাজার থেকে কিছু প্রয়োজনীয় কসমেটিকস কিনতে যায়।

এই বিষয় কে কেন্দ্র করে মেয়েটিকে কাচিয়া দাখিলা মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক আতরজ্জামান হুজুর, দাখিল মাদ্রাসা থেকে ছাড়পত্র দিয়ে দেন। আর মাদ্রাসায় না আসার জন্য বলে দেন, এমনটাই বলেন নাজমা বেগমের বাবা-মা। লিখিত অভিযোগ করে নাজমা বাবা গণমাধ্যমকর্মীদেরক জানায়,মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক আমাকে ডেকে নিয়ে আমার মেয়ের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ করে। সাথে সাথে আমি হুজুরদের সামনে আমার মেয়ের বিচার করি।

 

আতরজ্জামান হজুরের কাছে ক্ষমা চেয়ে আমার মেয়েকে যাতে বরখাস্ত না করে। নিয়মিত করার জন্য প্রত্যক শিক্ষকের কাছ থেকে আমি ও আমার মেয়ে তাদের কাছে ক্ষমা চাই। এ বিষয়ে তিনি আমার স্ত্রী’র কাছ থেকে সাদা কাগজে লিখিত দরখাস্ত নেয়। তিনি আমাকে আরও বলেন আপনার মেয়েকে বিয়ে দিয়ে দেন।ওনি একজন সচেতন লোক হয়ে আমার মেয়েকে বাল্যবিবাহ দেওয়ার পরামর্শ দেন।

আমি বোরহানউদ্দিন উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি তিনি যাতে সুষ্ঠু নিরপেক্ষ তদন্ত করে আমার মেয়েকে পড়ার সুযোগ করে দেন। তবে প্রধান শিক্ষক গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন – নাজমা মাদ্রাসা চলাকালীন মনিরাম বাজারে যায়।এছাড়াও আমাদের প্রতিষ্ঠানের এসএসসি পরীক্ষার্থী সুজনের সাথে দেখা করতে গিয়েছে এমন অভিযোগের সূত্র ধরে আমরা নাজমাকে বরখাস্ত করি।

নাজমার মায়ের দাবী- বিষয়টি হুজুরকে একটি মহল ভুল বুজিয়ে আমার মেয়ের ওপর জুলুম করেছে। আমি সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে এর বিচার দাবী করছি। আমার মেয়ে পড়াশোনা করতে চায়। আমার মেয়েকে অপবাদ দিয়ে মাদ্রাসা থেকে ছাড়পত্র দিয়েছে।এ ব্যাপারে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তপন কুমার বিশ্বাস জানান আমি সুপার থেকে বিষয়টি জানার পর যদি সত্যতা পাওয়া যায় তাহলে আইনানুগ ব্যবস্থা নিবো।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা