1. admin@upokulbarta.news : admin :
শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৪১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কেরানীগঞ্জে আইন-শৃঙ্খলা সভা অনুষ্ঠিত শেখ হাসিনার কল্যাণে তলাবিহীন ঝুড়ির দেশ থেকে আজকে সম্ভাবনাময় বাংলাদেশ হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কপ ২৭ আলোচ্যসূচিতে ক্ষয়-ক্ষতি প্রসঙ্গ অন্তর্ভুক্ত করার জন্য বাংলাদেশকে জোর অবস্থান নেওয়ার দাবি নাগরিক সমাজের Civil Societies demanded strong government position to include Loss & Damage in CoP 27 agendas সিদ্ধিরগঞ্জে মাদক ও কিশোর অপরাধকে না বললো ৪০০ শিক্ষার্থী কেরানীগঞ্জে বাস্তবায়ন হচ্ছে বিষমুক্ত সবজি উৎপাদনের কার্যক্রম মোংলায় স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ, থানায় মামলা মনপুরায় জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র সচিব’র সাথে গনমান্য ব্যক্তিবর্গের মতবিনিময় সভা ভোলা জেলা যুবলীগ ও অন্যান্য আওয়ামী সহযোগী সংগঠনের আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালিত শেখ হাসিনা বাঁচলে বাংলাদেশ বাঁচবে, উন্নয়ন অব্যাহত থাকবে-এমপি শাওন

পাকিস্তানের কারাগারে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করতে চেয়েছিল: এমপি শাওন

সম্পাদকঃ
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ১১ জানুয়ারি, ২০২২
  • ১৩৭ বার পঠিত

পারভীন আক্তার, লালমোহনঃ

ভোলা-৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন বলেছেন, পাকিস্তানের করচির কারাগারে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করতে চেয়েছিল। কারাগারে পাশে কবর করা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধুকে বলা হয়েছিল আপনার বাঙালিদের যুদ্ধ বন্ধ করান, আপনি প্রোয়জনে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী পদ নিয়ে যান। কিন্তু তিনি বলেছিলেন, আমার মৃত্যুর পর আমার লাশ বাঙালির কাছে পাঠিয়ে দিও। তিনি মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে থেকেও কোনো রকম আপস করেননি।

এমপি শাওন বলেন, ১৬ ডিসেম্বর যখন আমরা বিজয়ের আনন্দে মুখরিত তখনও বঙ্গবন্ধু কারাগরে। ৮ জানুয়ারী বঙ্গবন্ধু করাচির কারাগার থেকে মুক্ত হলেন। তিনি দেশে এসে প্রথমে বললেন আমার বাঙালি আজ স্বাধীন। আমার সকল সাধনা পূর্ণ হলো। ১১ জানুয়ারি সকাল ১০টায় লালমোহনে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশে প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিতি ছিলেন এমপি শাওন। এসময় তিনি এসব কথা বলেন। এমপি শাওন বলেন, ১৯৫৭ সালে মীর জাফরের কারণে সিরাজুদ্দৌলাকে নির্মম ভাবে হত্যা করা হয়েছিল। তেমনই ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট সেই বেঈমানের প্রেতাত্মা কর্নেল ফারুক, মোশতাক, মাজেদ গংরা বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারের হত্যা করেছিল।

ছোট্ট শিশু শেখ রাসেল ঘাতকদেরকে বলেছিল আমি আমার মায়ের কাছে যাবো। তখনও ঘাতকদের একটু দয়া হয়নি। শেখ রাসেলকে পেছন থেকে গুলি করে হত্যা করেছিল। তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে এখানকার স্থানীয় এমপি মেজর হাফিজ লালোহন তজুমদ্দিনে সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছিল। বিএনপি আমলে বাংলা ভাইরা মানুষকে মেরে গাছের সাথে ঝুলিয়ে রেখেছিল। ৬৪ জেলায় সিরিজ বোমা ফাটিয়েছিল তারা। এমপি শাওন জানান, শেখ হাসিনা সরকার ক্ষমতায় আছে বলেই আমরা এত উন্নতি করতে পেরেছি। এখন চরাঞ্চলের মানুষ বিদ্যুৎ পেয়েছে। মেঘনা নদী আমাদের অনেক মানুষের স্বপ্ন বিচূর্ণ করে দিয়েছে। মেঘনা যখন নিয়ে যায় তখন বাড়ি ঘর জায়গা জমি সব নিয়ে যায়। মাথা গোঁজার ঠাঁই থাকে না। মেজর হাফিজ এ লালমোহন তজুমদ্দিনের ২৩ বছর এমপি ছিলেন।

তিনি সেসময় পানিসম্পদ মন্ত্রী থেকে ভোলা তো দূরের কথা লালমোহন তজুমদ্দিনে মেঘনার ভাঙ্গনে কোনো ব্লক বা বেড়িবাঁধের একটু কাজও করেনি। আমরা প্রায় ১৯ মিঃ মিটার বেড়ি ও ব্লকের কাজ করেছি। মঙ্গল সিকদার, লর্ডহার্ডিঞ্জ এলাকায় জমির কোন মূল্য ছিল না এখন জমির দাম অনেক হয়েছে। লালমোহনে আয়োজিত সমাবেশে উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান, সব ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এবং পৌর কাউন্সিলরসহ সব ইউনিয়নের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা