1. admin@upokulbarta.news : admin :
রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:১২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
মেঘনা নদীতে কর্ণফুলী-৩ লঞ্চে আগুন, আতঙ্কিত যাত্রীরা ভোলায় পুকুরে ডুবে ভাই-বোনের মৃত্যু ফকিরহাটের শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে স্বপন দাশের প্রচার শুরু চরফ্যাশনে ভিকটিমকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাফিজুর রহমান এর বিরুদ্ধে আদালতের আদেশ মানতে গড়িমসি করছেন খুলনা বিভাগীয় পরিবার পরিকল্পনা পরিচালক রবিউল আলম বাইউস্টে নবীন শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত Sustainability with Profitability is Possible-Rezaul Karim Chowdhury লালমোহনে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মারপিট আহত ১ ২০২৪-২৫ বাজেটে সব ধরনের তামাকপণ্যের কর ও মূল্য বৃদ্ধির দাবিতে বিড়ি শ্রমিকদের মানববন্ধন মোহনপুরে প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী মেলার উদ্বোধন

কুতুবদিয়াবাসীকে নিজেদেদের সমস্যার সামাধান নিজেদেরকেই করতে হবে!

COAST Foundation, Dhaka
  • আপডেট সময় : শনিবার, ২ জুলাই, ২০২২
  • ১২৪ বার পঠিত
১৯৬৫ সালে যখন আমি চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুলের ছাত্র ছিলাম, তখন থেকে প্রায় ২০০০ সাল পর্যন্ত, অন্যান্য কুতুবদিয়াবাসীর মতো আমিও সাগর পাড়ি দিতে গিয়ে সমুদ্রের উত্তাল ঢেউয়ের বিপদের মুখে পড়েছি। ২০০০ সালের পর থেকে চকরিয়া হতে মগনামা ঘাট পর্যন্ত অবকাঠামোগত উন্নয়নের কারণে মানুষজন এই রাস্তাটি ব্যবহার করতে শুরু করে, এরপরেও যেখানে সবচেয়ে বিপদজনক অংশটি হলো কুতুবদিয়া চ্যানেলটি অতিক্রম করা।
শুধু সমুদ্রের উত্তাল ঢেউই নয়, এখানে প্রতিনিয়ত অবিশ্বাস্য শোষণের ঘটনা ঘটছে, ঘাটওয়ালাদের কাছে সব যাত্রীকেই একই মাত্রার সরকারী কর দিতে হচ্ছে। আমি নিজে আমার সহকর্মীসহ বেশ কয়েকবার সরকারি উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সাথে দেখা করেছি, ঘাটের জন্য কোনও ফি বা কর আদায় না করার অনুরোধ করতে। আমাদের যুক্তি হলো, জেটি নির্মাণ ছাড়া ঘাট পারাপারে সরকারের এক টাকাও বিনিয়োগ করা হয়নি, তাহলে কুতুবদিয়াবাসী কেন এর জন্য কর দেবে? কখনো কখনো এই কর কেউ দিতে না চাইলে তাদের অপমান করা হয়েছে।
এটি এতটাই ব্যাপক যে,কোস্ট থেকে আমরা বিনামূল্যে লাশ এবং অসুস্থ ব্যক্তিদের পারাপার করার জন্য একটি নৌকা দিয়েছি, অথচ এটা পরিচালনা করতেও আমরা সবসময়ই নানা বাধার মুখে পড়ি।
এই সমস্যার সমাধান সম্ভব, যদি এটিকে গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা হিসেবে বিবেচনা করেন প্রশাসন ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ। কুতুবদিয়ার জন্য আমাদেরনিরাপদ নৌযাত্রা প্রয়োজন, কুতুবদিয়ায় আমাদের বিদ্যুৎ দরকার, সর্বোপরি টেকসই বেড়িবাধ দরকার।
কুতুবদিয়ার তরুণ-তরুণীদের উপর আমার বিশ্বাস আছে, অনেক প্রতিশ্রুতিশীল ছেলে-মেয়ে ঢাকা এবং চট্টগ্রামে পড়াশোনা করে, আমি তাদের ভালোবাসি, আমি তাদের খুব যথেষ্ট দায়িত্বশীল মনে করি। আমি তাদের বলতে চাই- দয়া করে বড় স্বপ্ন দেখুন, বিশ্বমানের শিক্ষা নিন, যখন আপনি কোনও ভালো সুযোগ পাবেন-সুন্দর ভবিষ্যৎ নির্মাণের জন্য আপনার আত্মীয়দের দ্বীপ থেকে বের করে আনুন। কারও গোলাম হবেন না। নিজের ভাগ্য নিজেই লিখতে হবে, এর জন্য চাই দৃঢ় সংকল্প।
রেজাউল করিম চৌধুরী, ২রা জুলাই ২০২২।
এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা