1. admin@upokulbarta.news : admin :
  2. bangladesh@upokulbarta.news : যুগ্ম সম্পাদক : যুগ্ম সম্পাদক
  3. bholasadar@upokulbarta.news : বার্তা সম্পাদক : বার্তা সম্পাদক
শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০১:০১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ভোলার লালমোহনে পুলিশকে মারধরের ঘটনায় মামলা, আটক-৩ ভোলায় কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ৩ উপজেলা নির্বাচন ধলীগৌরনগর ইউপি নির্বাচনে মঞ্চ লুঙ্গী পড়া মানুষের জন্য বিশাল পথসভায় নেহাল পাটোয়ারী ভাইস চেয়ারম্যান থেকে চেয়ারম্যান হলেন ইউনুস, ভোলার ৩ উপজেলায় নির্বাচন সাতক্ষীরার ইছামতি নদীতে ভারতীয় নাগরিকের মরদেহ উদ্ধার! রাজশাহীতে পুষ্টি বিষয়ক মাল্টি সেক্টরাল সমন্বিত কর্মশালা অনুষ্ঠিত রামপালে মেধাবী অন্বেষণ কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত রামপালে গলায় ফাঁস দিয়ে যুবক যুবতীর আত্মহত্যা ধলীগৌরনগর ইউপি নির্বাচন- সুখেদুঃখে মানুষের পাশে থাকবেন সংরক্ষীত সদস্য প্রার্থী নাসিমা লালমোহন উপজেলা নির্বাচন২৪ নির্বাচিত হলে বদরপুরে সবচেয়ে বেশি উন্নয়ন করবো-প্রার্থী আকতার হোসেন

তন্বীর প্রেমে পড়ে ঢাকার সুবর্ণা মোংলায়

সহকারী সম্পাদক
  • আপডেট সময় : রবিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২৪
  • ১০৩ বার পঠিত

মোঃ আবু রায়হান ইসলামঃ

প্রথম বান্ধবির সম্পর্ক গড়ায় টিকটকে। পরে সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুক থেকে রুপ নেয় ভালোবাসায়। এভাবে চলতে থাকে ২/৩ মাস। এই ভালোবাসার মানুষকে কাছে পাওয়ার আগ্রহ দিন দিন বাড়তে থাকে তন্বী ও সুবর্ণার। শেষমেশ এ আকাঙ্ক্ষা রুপ নেয় বাস্তবে।

শুক্রবার (১২ এপ্রিল) ঢাকার নারায়ণগঞ্জ থেকে গোপালগঞ্জের বড়দিয়া এলাকার মো. রবি শেখের মেয়ে সুবর্ণা প্রেমের টানে মোংলার রহমান শেখের মেয়ে তন্বীর কাছে ছুটে আসে। একটি রাতও কাটে একসাথে তাদের।

শনিবার (১৩ এপ্রিল) সুবর্ণার সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমাদের টিকটকের মাধ্যমে সম্পর্ক হয়। আমরা কোরআনকে সাক্ষী রেখে বিবাহ করেছি। আমি এখন আমার বউকে নিয়ে যেতে এসেছি। আমি ওকে ছাড়া বাচঁবো না।

তন্বীর সাথে কথা হলে তিনি বলেন, টিকটক থেকে পরিচয় হওয়ার পরে সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে তার সাথে এ্যাড হই। পরে সে ( সুবর্ণা) একটা গ্রুপে আমাকে এ্যাড করে। আমাকে মজা করে সুবর্না বউ বলে ডাকতো। পরে সে আমাকে বিবাহ করছে চায়। আমি বলি তুমি কোরআন শরীফ ছুয়ে কছম কাটো ও কাটতে চায়না। আমাকে কছম কাটায়। আজকে আমাকে নিতে আসছে।

সুবর্নার মা পারভিন বেগম জানান, আমাদের চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলে আমার মেয়েকে নিয়ে আসবো। আমাদের একটু সময় দেন।

এ বিষয়ে মোংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কে এম আজিজুল ইসলাম বলেন, এটা বিবাহের কোন বিষয় না। তারা দুজনেই টিকটক করে। তারা দুজনই বান্ধবী। সুবর্না এখন পুলিশ হেফাজতে আছে। তার মা-বাবা আসলে তাদের কাছে দিয়ে দেওয়া হবে।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা