1. admin@upokulbarta.news : admin :
শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:০২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মেঘনা নদীতে কর্ণফুলী-৩ লঞ্চে আগুন, আতঙ্কিত যাত্রীরা ভোলায় পুকুরে ডুবে ভাই-বোনের মৃত্যু ফকিরহাটের শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে স্বপন দাশের প্রচার শুরু চরফ্যাশনে ভিকটিমকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাফিজুর রহমান এর বিরুদ্ধে আদালতের আদেশ মানতে গড়িমসি করছেন খুলনা বিভাগীয় পরিবার পরিকল্পনা পরিচালক রবিউল আলম বাইউস্টে নবীন শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত Sustainability with Profitability is Possible-Rezaul Karim Chowdhury লালমোহনে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মারপিট আহত ১ ২০২৪-২৫ বাজেটে সব ধরনের তামাকপণ্যের কর ও মূল্য বৃদ্ধির দাবিতে বিড়ি শ্রমিকদের মানববন্ধন মোহনপুরে প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী মেলার উদ্বোধন

ঘরের জন্য টিন পেয়ে খুশি ঘোড়ায় চরে ভিক্ষা করা সেই ‘‘জালু মিয়া’’

জেএম.মমিন, স্টাফ রিপোর্টার ।।
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ২২ মার্চ, ২০২৪
  • ৬২ বার পঠিত

ঘোড়ায় চরে ভিক্ষা করা ভোলার বোরহানউদ্দিনের সেই জালু মিয়া ঘর তৈরির জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল হতে পেলেন সরকারি ২৭পিচ (৩ বান) টিন।
বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) ইউএনও রায়হান-উজ্জামান তার নিকট উক্ত টিন হস্তান্তর করেন। ঘর নির্মানের জন্য টিন পেয়ে আনন্দিত জালু মিয়া।

জালু মিয়া ওরফে জালাল আহমেদ সাচড়া ইউনিয়নের দরুন গ্রামের মৃত্যু আঃ মতলেব এর ছেলে। তার কোনো জায়গা সম্পত্তি ও সন্তানাদি না থাকায় নিজ বাড়ী ছেড়ে একই ইউনিয়নের পাশের চরগঙ্গাপুর গ্রামে বোনের বাড়ীতে বৃদ্ধা স্ত্রীকে নিয়ে নারকেল পাতা ও পলিথিন দিয়ে তৈরি ঝুপড়ি ঘরে অসহায় অবস্থায় বসবাস করে আসছেন। পায়ে হেটে ভিক্ষা করে চলতো তাদের সংসার। গত চার বছর পূর্বে ভিক্ষার টাকা জমিয়ে ও বাছুর বিক্রির টাকা দিয়ে স্থানীয় এক ব্যক্তি থেকে একটি ঘোড়া কিনে সেটা দিয়ে এলাকায় ঘুড়ে ঘুড়ে ভিক্ষা করতেন। পরে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা ও টেলিভিশনে তাকে নিয়ে নিউজ প্রকাশিত হয় এবং তা সারাদেশে ব্যাপক ভাইরাল হয়। তখন অনেকে তার পাশে দাড়ানোর আশ্বাস দিলেও কেউ দাড়ায়নি। তবে বোরহানউদ্দিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রায়হান-উজ্জামান কয়েক মাস পূর্বে তাকে সহযোগীতার আশ্বাস দেন এবং ঘর তৈরির জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কল্যান তহবিল হতে ২৭পিচ টিন প্রদান করেন।

টিন পেয়ে জালু মিয়া জানান, কয়েক বছর ধরে নারকেল পাতা ও পলিথিন দিয়ে ঝুপড়ি ঘরে বাস করে আসছি। একটু ঝড় বৃষ্টি হলেই তা দিয়ে অঝোড়ো পানি পড়ে। তখন ঘরে থাকা যায়না। এখন টিন পেয়ে আমি অনেক খুশি। এখন বৃষ্টির পানি আর গায়ে পড়বে না। যারা আমার জন্য টিনের ব্যবস্থা করেছে তাদের জন্য দোয়া করি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রায়হান-উজ্জামান বলেন, কয়েক মাস পূর্বে তার বিষয়ে বিভিন্ন টেলিভিশন, পত্র পত্রিকা ও সাংবাদিকদের কাছ থেকে জানতে পারি এবং তাকে সহযোগীতার করা আশ্বাস দিয়েছি। প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে স্থায়ী ঘর নির্মানে তাকে টিন প্রদান করা হয়েছে। ভবিষ্যতেও তাকে সহযোগীতা করার চেষ্টা করবো।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা