1. admin@upokulbarta.news : admin :
  2. bangladesh@upokulbarta.news : যুগ্ম সম্পাদক : যুগ্ম সম্পাদক
  3. bholasadar@upokulbarta.news : বার্তা সম্পাদক : বার্তা সম্পাদক
শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ০৪:৫১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
নানা আয়োজনে পলিত হচ্ছে দৈনিক পত্রদূত সম্পাদক স.ম আলাউদ্দীন মৃত্যুবার্ষিকী সাতক্ষীরায় ২৪১ জনের মাঝে ১৭ লাখ টাকার অনুদানের চেক বিতরণ কুমিল্লায় দেশ ও জাতির কল্যাণে দোয়া ঈদ উপলক্ষে রেমালে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে খাদ্য বিতরণ করলো মাহাবুবা মতলেব তালুকদার ফাউন্ডেশন ৷ ভোলায় ঘুর্ণিঝড় রিমেলে ক্ষতিগ্রস্ত ২৫০ পরিবারের মাঝে ১৫ লক্ষ টাকা বিতরণ করল কোস্ট ফাউন্ডেশন মোংলায় দিন দুপুরে দোকান ঘর ভাংচুর ও জবর দখলের চেষ্টা বর্তমান সরকার অসহায় দুস্থদের সরকার-মেয়র শেখ আ: রহমান জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় পরিকল্পনা আছে বটে, কিন্তু বাস্তবায়নে বাজেট নেই বাগেরহাটে কলেজ শিক্ষকদের বেসিক আইসিটি প্রশিক্ষণের সনদ প্রদান বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে ফকিরহাটের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানগণের শ্রদ্ধা নিবেদন

অভাবের সংসারে ছেলের চিকিৎসা নিয়ে বিপাকে মা

স্টাফ রিপোর্টারঃ
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ২১ জুলাই, ২০২৩
  • ১৮৪ বার পঠিত
হাসপাতলের বেডে বসে আসে ডেঙ্গু আক্রান্ত অসুস্থ ‘‘সাজিম’’

অভাবের সংসারে ছেলের চিকিৎসা নিয়ে বিপাকে বোরহানউদ্দিন উপজেলার কুতুবা ইউনিয়নের ছাগলা গ্রামের সারমিন আকতার নামে এক অসহায় মা ৷
বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দ্বিতল ভবনের আন্তঃ মহিলা ওয়ার্ডে গিয়ে দেখাযায় রোগি আর রোগি। সাথে আছে স্বজনরা। সব মিলিয়ে বেশ জটলা। ফাঁক দিয়ে একটি বেডের কাছে গিয়ে দেখাযায় একজন মা বেডে বসে আসে । তাঁর ছেলে ঘুমাচ্ছে। মা অপলক দৃষ্টিতে ঘুমন্ত ছেলের দিকে তাকিয়ে আছে। আর চোখ দিয়ে পানি ঝঁড়ছে। তাঁর সাথে কথা হয় ৷
এসময় সে জানান,তাঁর দুটি ছেলে।বড় ছেলে সাজিম (১০)। ব্র্যাক স্কুলে লেখা পড়া করে। কয়েকদিন যাবত ছেলেটি ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত। কুতুবা ইউনিয়নের ছাগলা গ্রামে তাদের বাসা। ১৭ জুলাই হাসপাতালে এসে ভর্তি হন। তার চিকিৎসার জন্য ৩ হাজার টাকা কর্জ করে নিয়ে আসা হয় । পরীক্ষা – নিরীক্ষার পর টাকা শেষ। এদিকে ছেলের অবস্থা দিন দিন খারাপ হচ্ছে। চোখ মেলতে কিংবা খাইতে পারছেনা।
কর্তব্যরত সিনিয়র স্টাফ নার্স শাহনাজ ও নুশরাত জানান, তার প্লাটিলেট দিন দিন কমছে। ভর্তির দিন ১৭ জুলাই ছিল ১লাখ ৮৭ হাজার,১৮ জুলাই ১লাখ ৪৮ হাজার,১৯ জুলাই দাড়িয়েছি ৬৮ হাজার।এ অবস্থা উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেওয়া প্রয়োজন। ঢাকার কথা শুনেই বাকরুদ্ধ মা। তিনি জানান, তিন বেলা খেতে পারিনা। অভাবের সংসার। এক বেলা খেলে অন্য বেলা উপোস থাকতে হয়। কেমনে চলছি জানে আল্লাহ। হাউমাউ করে কেঁদে বলেন,” আল্লাহ আমি টাকা পাব কই? কী দিয়া চিকিৎসা করামু? “

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা