1. admin@upokulbarta.news : admin :
  2. bangladesh@upokulbarta.news : যুগ্ম সম্পাদক : যুগ্ম সম্পাদক
  3. bholasadar@upokulbarta.news : বার্তা সম্পাদক : বার্তা সম্পাদক
বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ০৯:৪৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
নানা আয়োজনে পলিত হচ্ছে দৈনিক পত্রদূত সম্পাদক স.ম আলাউদ্দীন মৃত্যুবার্ষিকী সাতক্ষীরায় ২৪১ জনের মাঝে ১৭ লাখ টাকার অনুদানের চেক বিতরণ কুমিল্লায় দেশ ও জাতির কল্যাণে দোয়া ঈদ উপলক্ষে রেমালে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে খাদ্য বিতরণ করলো মাহাবুবা মতলেব তালুকদার ফাউন্ডেশন ৷ ভোলায় ঘুর্ণিঝড় রিমেলে ক্ষতিগ্রস্ত ২৫০ পরিবারের মাঝে ১৫ লক্ষ টাকা বিতরণ করল কোস্ট ফাউন্ডেশন মোংলায় দিন দুপুরে দোকান ঘর ভাংচুর ও জবর দখলের চেষ্টা বর্তমান সরকার অসহায় দুস্থদের সরকার-মেয়র শেখ আ: রহমান জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় পরিকল্পনা আছে বটে, কিন্তু বাস্তবায়নে বাজেট নেই বাগেরহাটে কলেজ শিক্ষকদের বেসিক আইসিটি প্রশিক্ষণের সনদ প্রদান বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে ফকিরহাটের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানগণের শ্রদ্ধা নিবেদন

বিলুপ্তির পথে প্রকৃতির কারিগর বাবুই পাখি

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
  • আপডেট সময় : বুধবার, ৫ এপ্রিল, ২০২৩
  • ১৬৫ বার পঠিত

জেএম.মমিন, স্টাফ রিপোর্টারঃ
প্রকৃতির কারিগর বাবুই পাখি। এখন আর চোখে পড়ে এ পাখি ও তার তৈরি দৃষ্টিনন্দন সেই ছোট্ট বাসা । কিংবা বাসা তৈরির নৈসর্গিক দৃশ্য। এসব বাসা শুধু শৈল্পিক নিদর্শনই ছিল না।এটা মানুষের মনে চিন্তার খোরাক জোগাত এবং আত্মনির্ভরশীল হতে উৎসাহ যোগাত। কিন্তু কালের বিবর্তনে ও পরিবেশে বিপর্যয়ের কারণে আজ এ পাখিটি আমরা হারাতে বসেছি।
একসময় গ্রামগঞ্জের তাল, নারকেল ও খেজুরগাছে পাতা দিয়ে বাবুই পাখি উঁচু তালগাছে বাসা বাঁধে। সেই বাসা দেখতে যেমন আকর্ষণীয়, তেমনি মজবুত। প্রবল ঝড়েও তাদের বাসা পড়ে যেত না। গ্রামাঞ্চলে সারি সারি উঁচু তালগাছে বাবুই পাখির দৃষ্টিনন্দন বাসা দেখা যেত।
টবগী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন হাওলাদার,প্রধান শিক্ষক মাহবুবুর রহমান, সাচড়া ইউনিয়নের ইমরুল ও আবুল কালাম খাঁন জানান, একসময় এলাকায় অনেক তাল ও খেজুরগাছ ছিল। তখন প্রচুর পরিমাণ বাবুই পাখি এসে বাসা করেছে। তাল ও খেজুরগাছ বিপন্ন হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বাসস্থান সংকটের কারণে বাবুই পাখি বিলুপ্তপ্রায়।
সরকারি আব্দুল জব্বার কলেজের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের প্রধান নীল কমল জানান, বাবুই পাখি বাসা তৈরির পর সঙ্গী খুঁজতে যায় অন্য বাসায়। সঙ্গী পছন্দ হলে স্ত্রী বাবুইকে সাথী বানানোর জন্য নানা ভাবে ভাব-ভালোবাসা নিবেদন করে এরা। বাসা পছন্দ হলে কেবল সম্পর্ক গড়ে ওঠে।স্ত্রী বাবুই পাখির প্রেরণা পেয়ে পুরুষ বাবুই মনের আনন্দে শিল্পসম্মত ও নিপুণভাবে বিরামহীনভাবে বাসা তৈরির কাজ শেষ করে। বাংলাদেশে মাত্র তিন প্রজাতির বাবুই পাখির দেখা মেলে।
বোরহানউদ্দিন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এইচ,এম শামীম বলেন, দেশি বাবুইকে ফসল ক্ষেতে দেখা যায়। ফসলের ক্ষতিকর পোকামাকড়ই তার প্রধান খাদ্য। বাবুই পাখি কৃষকের ক্ষতির চেয়ে উপকার অনেক বেশি করে।
ভেটেরিনারি সার্জন ও উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা কে,এম আসাদুজ্জামান বলেন, ‘বৈরী আবহাওয়া ও পরিবেশের কারণে অনেক প্রাণি হারিয়ে যাচ্ছে। অসংখ্য প্রজাতির পশু, পাখি, কীট-পতঙ্গ আমাদের পরিবেশ থেকে বিলুপ্ত হয়েছে। অনেকগুলো বিলুপ্তির পথে।’

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা