1. admin@upokulbarta.news : admin :
রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ০৮:৫৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
পশ্চিম চর উমেদ ইউপি নির্বাচন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে ইভটিজিং বন্ধ করবেন সালেম হাওলাদার ভোলায় সাংবাদিক মহিউদ্দিনের উপর হামলায় গণমাধ্যমে নিন্দা-প্রতিবাদের ঝড় যৌতুকের দাবিতে পুত্রবধূকে মারধরের অভিযোগ শশুর শাশুড়ির বিরুদ্ধে মাছ শিকারে ২ মাসের নিষেধাজ্ঞা শুরু মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীতে গুরু -আঃ সামাদ ভোলার লালমোহন পশ্চিম চর উমেদ ইউপি নির্বাচন লালমোহন পশ্চিম চর উমেদ ইউপি নির্বাচন শিক্ষার মানোন্নয়ন করতে চান চেয়ারম্যান প্রার্থী অধ্যক্ষ সেলিম নারীর গুণ – আঃ সামাদ দৌলতখানে যুব রেড ক্রিসেন্টে দলনেতা মাশরাফি উপ-নেতা ইমতিয়াজ ও রহিমা মোংলায় ৫ শতাধিক চক্ষু রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান

স্বামীকে শরবতে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে প্রেমিকের সাথে পালাল গৃহবধূ!

বিশেষ প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় : বুধবার, ১৫ মার্চ, ২০২৩
  • ১০১ বার পঠিত

স্বামীকে শরবতে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে প্রেমিকের সাথে পালাল গৃহবধূ!

বিশেষ প্রতিনিধিঃ

লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে স্বামীকে শরবতের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে অচেতন করে ১৫ মাস বয়সি একটি কন্যাসন্তানকে রেখে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়ে এক গৃহবধূ পালিয়ে গেছেন। সোমবার গভীর রাতে উপজেলার চরলরেন্স ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় এ এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

এদিকে গৃহবধূর বাবার বাড়ির আত্মীয়স্বজন ও সম্ভাব্য জায়গায় খোঁজাখুঁজি শেষে সন্ধান না পাওয়ায় থানায় অভিযোগ করার বিষয়ে নিশ্চিত করেছেন গৃহবধূর শ্বশুর।

জানা যায়, সাড়ে তিন বছর আগে কমলনগর উপজেলার চরলরেন্স ইউনিয়নের এক যুবকের সঙ্গে নোয়াখালী জেলার সুধারাম থানার আন্ডারচর ইউনিয়নের এক তরুণীর (২০) পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। তাদের ঘরে ১৫ মাস বয়সি একটি কন্যাসন্তান রয়েছে।

গৃহবধূর স্বামী জানান, বিয়ের পর থেকে স্ত্রীকে নিয়ে বাবা মায়ের সঙ্গে একই পরিবারে থাকতেন। বিগত ছয় মাস ধরে কাজের সুবাদে তিনি রামগতি উপজেলার একটি ইটের ভাটার (ট্রাক্টরের ড্রাইভার) শ্রমিক হিসেবে কাজ করেন। সেখান থেকে ছুটি পেয়ে সপ্তাহে একদিন করে বাড়িতে আসতেন। দরকার হলেই নিজের মোবাইল ফোন থেকে স্ত্রীকে তার মা (শাশুড়ি) ও আত্মীয়দের সঙ্গে কথা বলতে দিতেন। স্ত্রীকে মোবাইল ব্যবহার করতে দিতেন না।

তিনি জানান, সোমবার রাত ১০টার দিকে কাজের থেকে বাড়িতে ফিরলে স্ত্রী তাকে বেলের সরবত খেতে দেয়। এরপর হাসিমুখে পাঁচশ টাকা চাইলে স্ত্রীকে দিয়ে দেন এবং কিছুক্ষণের মধ্যেই ঘুমিয়ে যান। পরের দিন দুপুরে ঘুম ভাঙলে দেখতে পান তিনি হাসপাতালে ভর্তি।

এ সময় কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, স্ত্রী তার অবুঝ শিশুসন্তানটি রেখে পালিয়েছেন। মায়ের জন্য সন্তানটির কান্না কিছুতেই থামানো যাচ্ছে না।

গৃহবধূর শাশুড়ি জানান, সোমবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে নাতনির (১৫ মাস) অতিরিক্ত চিৎকারে পরিবারের সবার ঘুম ভেঙে যায়। এরপর একাধিক ডাকাডাকি করার পর সাড়াশব্দ না পেয়ে পুত্রবধূর রুমে গিয়ে দেখতে পান সে রুমে নেই। ঘরের মূল দরজা খোলা কাপড়চোপড়ও নেই। ছেলে গভীর ঘুমে। পরে চারিদিকে খোঁজাখুঁজি করার পর পুত্রবধূর পলায়নের বিষয়টি আত্মীয়স্বজন ও গৃহবধূর বাপের বাড়ির লোকজনকে জানান তারা।

তিনি জানান, ছেলের বউ মোবাইল লুকিয়ে রেখে কে বা কাহার সঙ্গে গোপনে কথা বললেও এতোদিন কেউ জানতেন না । পলায়নের দিন বিকালে লুকিয়ে কথা বলতে গেলে বিষয়টি তিনি দেখে ফেলেন। এ নিয়ে সামান্য কথা কাটাকাটি হয়।

তিনি আরও বলেন, মোবাইলে কথা বলার বিষয়টি ফাঁস হয়ে যাওয়ার কারণেই মূলত তার পুত্রবধূ অবুঝ নাতনিকে রেখে এক ভরি স্বর্ণালংকার নগদ ২৪ হাজার টাকা নিয়ে রাতের আঁধারে পালিয়ে গেছে।

এদিকে গৃহবধূর ভাবি মোবাইল ফোনে জানান, ননদ তার শ্বশুর বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছে বলে শ্বশুরবাড়ির লোকজন মোবাইল ফোনে তাদের জানিয়েছেন। তবে তার ননদ কার সঙ্গে বা কোথায় রয়েছেন তারা কেউ জানেন না বলে ফোন কেটে দিয়েছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইউপি সদস্য সিরাজুল ইসলাম জানান, গৃহবধূর পলায়নের খবরটি রাতেই তিনি শুনেছেন। সকালে ওই বাড়িতে গিয়ে অচেতন স্বামীকে হাসপাতালে পাঠানোর পরামর্শ দিয়েছেন। তবে মাত্র ১৫ মাসের অবুঝ সন্তানকে রেখে পরকীয়ার টানেই স্বামীকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে গৃহবধূ পালিয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

কমলনগর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোহাম্মদ সোলাইমান জানান, এ বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা