1. admin@upokulbarta.news : admin :
শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:৫৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
২০২৪-২৫ বাজেটে সব ধরনের তামাকপণ্যের কর ও মূল্য বৃদ্ধির দাবিতে বিড়ি শ্রমিকদের মানববন্ধন মোহনপুরে প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী মেলার উদ্বোধন লালমোহনে ৪৮০ টাকা পাওয়ানাকে কেন্দ্র করে মারপিট আহত ৬ শেখ হেলাল উদ্দীন সরকারি কলেজে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উদযাপন ফকিরহাটে প্রান্তিক খামারিদের প্রদর্শনী দেখে অভিভূত সবাই নিজের বিবেক দ্বারা পরিচালিত হয়ে উপজেলা নির্বাচনে জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করবেন-রামপালে কেসিসি মেয়র উম্মুক্ত হোন,উদার হোন এবং অন্যদের নেতৃত্বের জন্য স্থান তৈরি করুন-রেজাউল করিম চৌধুরী লালমোহনে চাচা শ্বশুরকে হত্যার হুমকি দিলেন ভাতিজী জামাতা গালকাটা ফরিদ বোরহানউদ্দিনে পুকুরে ডুবে শিশুর মৃত্যু ফকিরহাটে বিষ পানে এসএসসি শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

ভোলায় কিস্তির টাকার জন্য নারীকে পিটালেন এনজিও ম্যানেজার

সহকারী প্রকাশকঃ
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২ মার্চ, ২০২৩
  • ১১৬ বার পঠিত

ভোলায় কিস্তির টাকার জন্য নারীকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে বেসরকারি সংস্থা (এনজিও) গ্রামীণ জন বিরুদ্ধে

বিশেষ প্রতিনিধি:
কিস্তি পরিশোধ করতে না পারায় বিবি ফাতেমা নামে এক নারীকে আটকে রেখে মারধরের অভিযোগ উঠেছে বেসরকারি সংস্থা (এনজিও) গ্রামীণ জন উন্নয়ন সংস্থার বিরুদ্ধে। ভুক্তভোগী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন। এব্যপারে দৌলতখান থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।
ঘটনাটি ঘটেছে গত মঙ্গলবার দৌলতখান উপজেলার মিয়ার হাটে এলাকায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, দৌলতখান উপজেলার মিয়ার হাট এলাকার গ্রামীণ জন উন্নয়ন সংস্থা নামে একটি এনজিও থেকে গত বছর চার লক্ষ টাকা ঋণ গ্রহণ করে উত্তর জয়নগর ৭ নং ওয়ার্ডের কামরুল ইসলামের স্ত্রী বিবি ফাতেমা। নিয়মিত ঋণের কিস্তি পরিশোধ করে আসলে এমাসে ব্যবসায়ে লোকসান থাকায় ঋণের কিস্তি পরিশোধ করতে পারছিলেন না। পরে তিনি ম্যানেজারের সাথে তার সমস্যার কথা বলে দশ হাজার টাকা দিবে এবং কিছু দিনের ভিতরে বাকি টাকা পরিশোধ করবে বলেন। ইলিয়াস (ম্যানেজার) কৌশলে এনজিও অফিসে নিয়ে তাকে গালিগালাজ করে এবং তারা তাকে মারধর করেন বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীর। পরে স্থানীয় লোকজন খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করান।

এ ব্যাপারে ঋণগ্রহীতা ফাতেমা বলেন, আমার স্বামী ঢাকায় ফুটপাতে ব্যবসা করে। এমাসে ব্যবসায় লোকসান থাকায় টাকার খুব স্বল্পতা ছিলো। তাই ম্যানেজার স্যারের সাথে কথা বলে এমাসে দশ হাজার টাকা দিবো বলছি এবং বাকি টাকা কিছুদিনের ভিতরে দিবো বলে জানাই। সে কারণে এনজিও অফিসার আমাকে কৌশলে অফিসে নিয়ে যায়। আমাকে টেনে হিঁচড়ে তার কক্ষে নিয়ে মারধর করে। পরে আমাকে গালিগালাজ করে অনেক হুমকি-ধমকি দেয় এবং কিস্তি পরিশোধ করে তোমার স্বামী তোমাকে ছাড়িয়ে নেবে। টাকা ছাড়া তোমাকে কেউ নিতে পারবে না।

তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে এনজিও ম্যানেজার মো. ইলিয়াস বলেন, সে দশ হাজার টাকা দিয়ে অফিস থেকে নামার সময় উঁচু সিড়ি থেকে পরে গিয়ে হয়তো ব্যথা পেয়েছে। অফিসের কর্মচারী ও আশপাশের লোকজন তাকে ধরে অফিসে এনে বসাইছে। কেউ তার সাথে খারাপ আচরণ করেনি।

বিষয়টিকে অমানবিক উল্লেখ করে দৌলতখান থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জাকির হোসেন বলেন অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা