1. admin@upokulbarta.news : admin :
  2. bangladesh@upokulbarta.news : যুগ্ম সম্পাদক : যুগ্ম সম্পাদক
  3. bholasadar@upokulbarta.news : বার্তা সম্পাদক : বার্তা সম্পাদক
শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ১২:৩৪ অপরাহ্ন

পরকিয়া প্রেমিকের টানে প্রবাসে স্বামীর সর্বস্ব লুটে প্রেমিকের সাথে দেশে এসে স্বামীসহ ৭ জনের নামে মিথ্যা মামলা

সহকারী সম্পাদক
  • আপডেট সময় : সোমবার, ৩০ জানুয়ারি, ২০২৩
  • ১৯৪ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টারঃ

স্বপরিবারে দুবাই প্রবাসে থেকে স্ত্রীর পরকিয়ায় শাসন করায় বিদেশেও জেল খেটেছেন নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার ইলুমদী গ্রামের আলী হোসেন (৪২) নামে এক যুবক। তা ছাড়া স্বামীর সর্বস্ব লুটে নিয়ে প্রবাস থেকে পরকিয়া প্রেমিকের সাথে দেশে চলে এসে প্রবাসে থাকা স্বামী সহ তার পরিবারের সব সদস্যদের নামে মিথ্যা যৌতুক মামলা দিয়ে হয়রানী করার অভিযোগ উঠেছে এক সুচতুর মহিলা ফারজানার বিরুদ্ধে।

দুবাই প্রবাসী আলী হোসেনের ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ২০০৯ সালের ডিসেম্বর মাসে ইলুমদী গ্রামের নিয়ত আলীর ছেলে আলী হোসেনের সাথে বিয়ে হয় রূপগঞ্জ উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভার বুরুটিয়া গ্রামের জামানের মেয়ে ফারজানার। সংসার জীবনে তাদের দুই পুত্র সন্তান জন্মের পর স্বামী আলী হোসেন দুবাই চলে যান। ২০১৮ সালে তিনি স্ত্রী ফারজানাসহ তাদের ২ ছেলে রাহাত ও সিরাত কে ও দুবাইতে নিয়ে যান। সেখানে তাদের সুখের সংসার চলছিলো কিন্তু বাদ সাধে পরকিয়া, ফারজানা পরকিয়ায় জড়িয়ে পড়েন চট্টগ্রামের দুবাই প্রবাসী মাহবুব নামের এক যুবকের সঙ্গে। এ ঘটনা স্বামীর কাছে ধরা পড়লে আলী হোসেন স্ত্রী ফারজানাকে শাসন করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ফারজানা তার উপর নির্যাতনের অভিযোগ এনে স্বামীকে দুবাই পুলিশের হাতে ধরিয়ে দিয়ে স্বামীর প্রবাসে থাকা ব্যবসার ৫০ লাখ টাকা ও বিপুল পরিমাণ স্বর্ণ অলংকার নিয়ে দুই ছেলেসহ পরকিয়া প্রেমিক মাহবুবের সঙ্গে দেশে চলে আসেন। দেশে এসে নারায়ণগঞ্জ আদালতে প্রবাসী স্বামীসহ তার পরিবারের ৭ সদস্যের নামে নারী নির্যাতন ও যৌতুক আইনে একটি মামলা করেন। পরে দুবাইয়ের রাস আল খাইমাহ আদালত থেকে আলী হোসেন তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ায় বেকসুর খালাস পেয়ে দুবাইতে তার বাসায় এসে দেখেন তার স্ত্রী সন্তানদেরকে নিয়ে টাকা পয়সা স্বর্ণ গয়না আত্মসাৎ করে দেশে চলে এসেছেন।

এ দিকে নারায়ণগঞ্জ আদালতে দায়েরকৃত মিথ্যা যৌতুক মামলায় ফারজানা তাকে তার স্বামীর পরিবারের ৭ সদস্য যৌতুকের দাবীতে স্বামীর বাড়ীতে নির্যাতন করা কথা উল্লেখ করা হলেও সরেজমিনে পর্যবেক্ষণে গিয়ে জানা যায়,ফারজানা দেশে আসার পর কোনদিন তার স্বামীর বাড়ী ই্লুমদীতে যাননি। তা হলে তার উপর যৌতুকের দাবীতে স্বামী ও শশুর বাড়ীর লোকজন কি ভাবে অত্যাচার করলো- এ প্রশ্ন ভুক্তভুগি পরিবারটির। এ বিষয়ে আলী হোসেনের পিতা নিয়ত আলী বিজ্ঞ আদালতের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা