1. admin@upokulbarta.news : admin :
সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৬:১৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
তজুমদ্দিনে সাদিয়া সমাজকল্যাণ ফাউন্ডেশনের কম্বল বিতরণ চরফ‍্যাসনে মানুষের কাটা হাত উদ্ধার করেছে পুলিশ মেঘনায় মৎস্য অফিসের অভিযানে আটককৃত মালামাল বিক্রি করার অভিযোগ আ’লীগ সরকারী দল নয়, দলের সরকার হয়ে দেশ চালাচ্ছে বলেই এত উন্নয়ন; শিল্প মন্ত্রী মোহনপুরে রনি বাহিনী অস্ত্র ঠেকিয়ে টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ মঠবাড়িয়া রিপোর্টার্স ইউনিটির বনভোজন সম্পন্ন ভোলার শিবপুরে পূর্ব শত্রুতার জেদ ধরে প্রতিপক্ষকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ হাঁস পালন পদ্ধতি ফকিরহাট কাকডাঙ্গা ১২তম বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ কক্সবাজারে তানযীমুল উম্মাহর বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক চূড়ান্ত প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

হত্যা মামলার আসামি নিয়োগ পেলেন প্রাইমারি শিক্ষক পদে

সহকারী সম্পাদক
  • আপডেট সময় : শনিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ২৩ বার পঠিত

আশিকুর রহমান শান্তঃ
গত ১৪ ডিসেম্বর প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। প্রকাশিত ফলাফলে দেখা যায় ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার দক্ষিণ কুতুবা ইউনিয়নের ৮নং ওয়াডের বাসিন্দা চার্জসিট ভুক্ত হত্যা মামলার প্রধান আসামি সৈকত চন্দ্র দে (২৫) প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক পদে নিয়োগ পেয়েছেন। তার রোল নাম্বার ৭১২৪৩৬৬ । তিনি

হত্যা মামলা সূত্রে জানা যায়, গত বছরের ২৭/৭/২১ ইং তারিখে সদ্য প্রকাশিত প্রাথমিক শিক্ষক পদে নিয়োগ প্রাপ্ত সৈকত চন্দ্র দে এর বিরুদ্ধে একটি হত্যা চেষ্টার মামলা দায়ের করা। যার মামলা নং জিআর ৯১/২১ । উক্ত হত্যা চেষ্টার মামলায় প্রধান আসামী হলেন তিনি। উক্ত মামলাটি এফআইআর হলে সেই মামলা থেকে মামলার প্রধান আসামী সৈকত চন্দ্র দে, দ্বিতীয় আসামি কিশোর প্রদীপ দে, তৃতীয় আসামি সমীর চন্দ্র দে সহ অন্যান্য আসামীরা জামিন নিয়ে বের হয়ে আসে। সেই থেকে এখন পর্যন্ত মামলাটি চলমান রয়েছে। সেই মামলায় নিয়মিত সৈকত চন্দ্র দে সহ সকল আসামিরা আদালতে হাজির হতে হয়।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক সৈকত চন্দ্র দে এর মুঠোফোন একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য জানা যায় নি

উক্ত মামলার বিষয় শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পাওয়া সৈকত চন্দ্র দে এর পিতা সমীর চন্দ্র দের কাছে জানতে চাইলে তিনি মামলার সত্যতা স্বীকার করে বলেন এরকম অনেক মামলাই আছে। কোর্টের মামলা কোর্টের বিষয় তবে আমার ছেলে শিক্ষক পদে নিয়োগ পায়নি। আমার ছেলে কোন ফোন চালায় না।

এ বিষয়ে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আমিনুল ইসলাম জানান, এখন পর্যন্ত এই বিষয়ে আমরা কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি। লিখিত অভিযোগ পেলে আমরা সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তরকে উক্ত বিষয়ে অবগত করবো।

এ বিষয়ে উক্ত মামলার তদন্তকারী অফিসার মোঃ দেলোয়ার হোসেন মামলার সত্যতা স্বীকার করে বলেন এ মামলাটি এখনো কোর্টে চলমান।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা