1. admin@upokulbarta.news : admin :
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১১:০৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ভেদুরিয়া চরকালী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ফান্ডের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ প্রধান শিক্ষক সিরাজুল ইসলাম এর বিরুদ্ধে ভেদুরিয়ায় নবগঠিত ইউনিয়ন কমিটির আনন্দ মিছিলে দুষ্কৃতিকারীদের অতর্কিত হামলার অভিযোগ লালমোহনে স্বামী কর্তৃক স্ত্রী নির্যাতনের অভিযোগ আরডিএ’র নির্বাহী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে ২শ ৬ কোটি টাকার কাজে অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সুস্থ স্বাস্থ্যের জনশক্তি হিসেবে গড়ে তুলতে হবে সিদ্ধিরগঞ্জ,চৌধুরী বাড়ী বাইতুল মা’মুর জামে মসজিদের পুনঃনির্মান ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধন মোহনপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী ও মহান বিজয় দিবস উদযাপনে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত পটুয়াখালীতে স্কুল ঝড়ে পড়া ১৭ হাজার শিশুদের শিক্ষা কার্যক্রম শুরু জেলে পরিবারের নারীদের অধিকার আদায়ে ভোলায় নেটওয়ার্কিং প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত রাস্তা কেটে বরযাত্রীকে আটকে দেওয়া আলোচিত সেই মেম্বার এর নেতৃত্বে জমি দখলের অভিযোগ, সংঘর্ষ, আহত-১

সোনারগাঁয়ে দালাল জাহাঙ্গীরের খপ্পরে পরে দুই পরিবার নিঃস্ব এস’পি অফিসে অভিযোগ

সহকারী সম্পাদক
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ১১ অক্টোবর, ২০২২
  • ২৮ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টারঃ

সোনারগাঁও উপজেলায় সাদীপুর ইউনিয়নের কাজহরদী গ্রামের আঃ হামিদের ছেলে আরিফ (২৪) ও মৃত আফাজ উদ্দিনের ছেলে কবির হোসেন (২২) এই দুই পরিবারকে নিঃস্ব করেছে প্রতারক জাহাঙ্গীর ও তার সহযোগী পারুল বেগম।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায় যে সোনারগাঁও সম্মান্দী ইউনিয়নের মাঝের চর গ্রামের হত দরিদ্র আঃ লতিফের ছেলে বছর ২ আগে সৌদি আরবে পারি দেন। সেই সুবাদে আঃ হামিদের ছেলে আরিফ হোসেনেরও মৃত আফাজ উদ্দিনের ছেলে কবির হোসেনের সাথে সম্পর্ক গড়ে উঠে বিদেশের আলোচনায় এবং আরিফ ও কবিরের বন্ধুও ছিলেন প্রতারক জাহাঙ্গীর।

ভুক্তভোগী আরিফ ও কবির বলেন দালাল জাহাঙ্গীর মিয়া দীর্ঘদিন যাবৎ সৌদী আরব থেকে আদম ব্যাবসা করে আসছে। আমরা অসহায় গরীব বেকার ছেলে। সেই কারনে জাহাঙ্গীর এবং তার বোন ও পিতার মাধ্যমে আমাদের সৌদী আরব নিয়ে যাবে বলে প্রস্তাব দেয়। আমরা নিজেদের বেকারত্ব ঘুচাতে এবং অসহায় পরিবারের বাবা মা ভাই বোনদের মুখে হাসি ফুটাতে তাদের প্রস্তাব অনুযায়ী (সৌদী আরব) বিদেশ যেতে রাজী হই। সে মতে আমার পিতার সামান্য পৈতৃক ভিটি ভাড়ি বন্ধক ও মানুষের কাছ থেকে ধার দেনা করে ১নং বিবাদী জাহাঙ্গীরের আঃ পিতা লতিফ ও বোন পারুলের নিকট নগদ ৪,২০০০০/ (চার লক্ষ বিশ হাজার) তুলে দেই। সেই সাথে মেডিকেল ও পাসপোর্ট করতে আরো ৫০,০০০/ (পঞ্চাশ হাজার) টাকা সহ দুইজনে মোট ৭,৯০০০০/(সাত লক্ষ নব্বই  হাজার)  টাকা দেই। এবং আমাদের গত ০৪-০৩-২০২২ইং তারিখে বিদেশ সৌদি আরব নিয়ে যায়। সেখানে যাওয়ার পর আমাকে কোন কাজকর্ম না দিয়ে দালালদের নিকট বিক্রি করে দেয়। সেখানে দালাল চক্র আমাকে রুমে আটকিয়ে সারা দিন রাত মারধর করতে থাকে। এবং বাড়ি থেকে টাকা নিয়ে আনতে বলে। এভাবে দিনের পর দিন জাহাঙ্গীর ও তার দালালদের অত্যাচারে অসুস্থ হয়ে পড়ি। একপর্যায়ে বাড়িতে খবর পাঠালে আমাদের অসহায় পিতামাতা আমাদের নিকট টাকা পাঠায়। পরে তারা আমাকে চাকুরির কোন ব্যাবস্থা না করে চার মাস  আট দিন পর গত ১২-০৭-২০২২ইং তারিখে দেশে পাঠিয়ে দেয়। দেশে এসে আমি আমার এলাকার স্থানীয় মেম্বার ও গন্যমান্য ব্যাক্তিদের নিকট সব খুলে বলি। আমার কথা শুনে তারা ১নং বিবাদী জাহাঙ্গীরের পিতা লতিফ ও পারুলের নিকট যাই। এবং তাদেরকে আমার ক্ষতিপূরণ দিতে কান্নাকাটি করি। তাতে তারা এলাকার স্থানীয় সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে আমার উপর চড়াও হয়। বলতে থাকে বিদেশ নেয়ার কথা বিদেশে পাঠিয়েছি। এখন আবার কিসের টাকা দিব? যদি এ ব্যাপারে কোন বাড়াবাড়ি করি কিংবা আইন প্রশাসনকে জানাই তাহলে চিরতরে গুম খুন করিয়া ফেলিবে। এমনকি তাদের নাকি ক্ষমতাসীন লোক রয়েছে যাদের মাধ্যমে আমার ও আমার পরিবারের বিরাট ক্ষতি করিয়া ফেলিবে। এদিকে আমার পিতার বাড়ি বন্ধক ও ধার করা টাকা পরিশোধ করতে না পারায় ঠিক মত বাড়িতে থাকতে পারছিনা। তাই আমি একজন অসহায় পরিবারের সন্তান হিসেবে স্থানীয় প্রশাসনের  সহযোগিতা কামনা করছি।
কারন আদম পাচারকারী  জাহাঙ্গীর আরো অনেক পরিবারকে বিদেশে নিয়ে এভাবে পথের ফকির করে দিয়েছে।

এবিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনের কার্যলয়ে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা