1. admin@upokulbarta.news : admin :
শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৫৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কেরানীগঞ্জে আইন-শৃঙ্খলা সভা অনুষ্ঠিত শেখ হাসিনার কল্যাণে তলাবিহীন ঝুড়ির দেশ থেকে আজকে সম্ভাবনাময় বাংলাদেশ হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কপ ২৭ আলোচ্যসূচিতে ক্ষয়-ক্ষতি প্রসঙ্গ অন্তর্ভুক্ত করার জন্য বাংলাদেশকে জোর অবস্থান নেওয়ার দাবি নাগরিক সমাজের Civil Societies demanded strong government position to include Loss & Damage in CoP 27 agendas সিদ্ধিরগঞ্জে মাদক ও কিশোর অপরাধকে না বললো ৪০০ শিক্ষার্থী কেরানীগঞ্জে বাস্তবায়ন হচ্ছে বিষমুক্ত সবজি উৎপাদনের কার্যক্রম মোংলায় স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ, থানায় মামলা মনপুরায় জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র সচিব’র সাথে গনমান্য ব্যক্তিবর্গের মতবিনিময় সভা ভোলা জেলা যুবলীগ ও অন্যান্য আওয়ামী সহযোগী সংগঠনের আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালিত শেখ হাসিনা বাঁচলে বাংলাদেশ বাঁচবে, উন্নয়ন অব্যাহত থাকবে-এমপি শাওন

চরফ্যাসনে শসার বাম্পার ফলন, লাভের আশায় কৃষক

উপকূল বার্তা ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : রবিবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ২২ বার পঠিত
অধরা ইসলাম,রেডিও মেঘনা-চরফ্যাসনঃ
ভোলার চরফ্যাসন উপজেলায় শসার বাম্পার ফলন হয়েছে। চলতি বর্ষার মৌসুমে জমি শসা চাষের উপযোগী হওয়ায় বেশ ভালো ফলন হয়েছে চাষিদের জমিতে। তাই অন্যান্য ফসলের তুলনায় শসা চাষে লাভ বেশি হওয়ায় উপজেলার প্রায় অধিকাংশ এলাকায় শসা চাষে আগ্রহ বাড়ছে চাষিদের।
সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার আবদুল্লাহপুর, দক্ষিণশীবা সহ চারদিকে শসা চাষাবাদে ব্যস্ত সময় পার করছেন চাষিরা। প্রথম ধাপে কিছু শসা বিক্রি করার পর আবারও শসা গাছগুলোতে নতুন করে আসছে ফুল। তাতে চাষিরা আরও খুশি।
দক্ষিণশীবা এলাকার শসা চাষি আব্দুল সাত্তার বলেন, প্রতিবছরের মতো এবার ৫০ হাজার টাকা ব্যয়ে প্রায় ২০ গন্ডা জমিতে শসা চাষ করেছেন। বর্ষার মৌসুমে খুচরা বাজারে এখন শসার ভালো দাম রয়েছে। পুরো জমি থেকে প্রথবারের মতো ৫ মণ শসা বিক্রি করেছেন ২০ টাকা দরে। সপ্তাহের ব্যবধানে ২০ মণ শসা বাজার জাত করতে পারবেন, বাজার দর ঠিক থাকলে মৌসুম শেষে ৪ লক্ষ টাকা লাভের আশা করছেন তিনি।
তিনি আরও বলেন, প্রতি কেজি শসা ২০ থেকে ২২ টাকা করে পাইকারি বিক্রি হচ্ছে। প্রতি মণ শসা পাইকারি ছয়শত থেকে আটশত টাকায় বিক্রি করছে। আবহাওয়া ভালো ও বাজার মূল্য বেশি হওয়ায় এ মৌসুমে শসা চাষে আয় ভালো হবে।
কৃষি অফিস সূত্র জানায়, প্রতিবছরই এ উপজেলায় শীতকালীনসহ সব মৌসুমে সবজি উৎপাদনে আগ্রহী কৃষকরা। ইউনিয়ের বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে ফসলি জমিতে শসা, লাউ, সহ নানা জাতের সবজির চাষ করা হয়। এখানকার সবজি জেলার চাহিদা মেটানোর সাথে সাথে দেশের বাহিরেও রপ্তানি হচ্ছে। ফলে সবজি উৎপাদনের ক্ষেত্রে এ উপজেলাটি বিগত কয়েক বছর থেকে খ্যাতি অর্জন করেছে।
এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা