1. admin@upokulbarta.news : admin :
মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ০৪:০৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
যুবক সজিবঃ যুবকদের অনুপ্রেরণা মানববন্ধন করে হয়রানি ও মানহানি করার প্রতিবাদে ভোলায় সংবাদ সম্মেলন ভোলার ভেদুরিয়ায় ভূমিদস্যু দুলাল বাউলীর বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর মানববন্ধন শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল স্পেটিং ক্লাবের উদ্বোধন উপলক্ষে ফুটবল প্রীতি ম্যাচ অনুষ্ঠিত সিদ্ধিরগঞ্জে চুরির অপবাদ দিয়ে ফাঁকা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর রেখে গাড়ি চালকের ক্ষতির চেষ্টা মেট্রোরেলের দ্বাদশ চালান নিয়ে মোংলা বন্দরে ট্রাম্প জাসদের ৫০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে ভোলায় মশাল মিছিল দশমিনা উপজেলার সিপিপি স্বেচ্ছাসেবকদের মধ্যে গিয়ার বিতরন অনুষ্ঠানে ২০২২ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এদেশে সকল ধর্মের মানুষে শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করছে-এমপি শাওন গানের শুরে নেশাকে না বলুন লালমোহনে মঞ্চ মাতালেন ডি আইজি আক্তারুজ্জামান

শখের বসে ছাগল পালন করে স্বাবলম্বী চরফ্যাসনের নারীরা

রেডিও মেঘনা-চরফ্যাসন।
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৪৩ বার পঠিত
সুরভী ও মৌসুমী মনীষাঃ
গৃহস্থলী কাজের পাশপাশি শখের বসে ও সংসারে বাড়তি আয়ের জোগান দিতে ভোলার চরফ্যাসন উপজেলার নারীরা বেছে নিয়েছে দেশি জাতের গৃহপালিত পশু পালন। বাণিজ্যিকভাবে গৃহিনীরা গরু, ছাগল পালন করতে যথেষ্ট মনযোগী। এসব নারীদের মূল লক্ষ্য কর্মহীন না থেকে সংসার এবং সন্তানদের ভবিষ্যতের জন্য অর্থ সংগ্রহ করা।
উপজেলার উত্তর মাদ্রাজ এলাকার গৃহিনী সেতারা বেগম জানান, বসত বাড়ির পাশে গড়ে তুলেছেন ছাগলের খামার। শখের বসে প্রথমে ১৮ হাজার টাকা খরচ করে দুটি ছাগল কিনে খামার শুরু করেন। কয়েকদিন পরে সেই ছাগল দুটি করে বাচ্চ দেয় । ধীরে ধীরে তার খামারে ছাগলের সংখ্যা বাড়তে থাকে। কিছুদিন আগেও প্রায় ১৫টি ছাগল ছিলো। এবারের কোরবানির ঈদে দুটি ছাগল ১৫ হাজার টাকা বিক্রি করেন । বর্তমানে তার খামারে ৯ টি ছাগল রয়েছে এর আনুমানিক মূল্য প্রায় ৩০-৩৫ হাজার টাকা।
তিনি আরো বলেন, মূলত তার ছেলেই গৃহপালিত পশু পালনে আগ্রহী ছিলো। ছেলের অর্বতমানে এই খামারের দেখাভাল কর্মচারী ও তিনি দেখেন। ছাগল পালনে খরচ কম বলেই খুব সহজেই লাভবান হওয়া যায়। তার পরিশ্রম ও বিশ্বাস এখন সফলতা এনে দিয়েছে। ভবিষ্যতে আরো বড় করে ছাগল,গরুর খামার দেয়ার স্বপ্ন দেখেন তিনি।
চরফ্যাশন উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা বলেন, বর্তমানে দেশের মোট জনসংখ্যার অর্ধেকই নারী, সংসারের সচ্ছলতা আনতে বাকি সময়টুকুও কাজে লাগাতে চায় তারা। সঠিক প্রশিক্ষণ ও সরকারের সহযোগিতা পেলে গ্রাম অঞ্চলের নারীরা আরো বেশি আর্থিক সফলতা অর্জন করতে পারবে।
এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা