1. admin@upokulbarta.news : admin :
  2. bangladesh@upokulbarta.news : যুগ্ম সম্পাদক : যুগ্ম সম্পাদক
  3. bholasadar@upokulbarta.news : বার্তা সম্পাদক : বার্তা সম্পাদক
বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ০১:৩০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
নানা আয়োজনে পলিত হচ্ছে দৈনিক পত্রদূত সম্পাদক স.ম আলাউদ্দীন মৃত্যুবার্ষিকী সাতক্ষীরায় ২৪১ জনের মাঝে ১৭ লাখ টাকার অনুদানের চেক বিতরণ কুমিল্লায় দেশ ও জাতির কল্যাণে দোয়া ঈদ উপলক্ষে রেমালে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে খাদ্য বিতরণ করলো মাহাবুবা মতলেব তালুকদার ফাউন্ডেশন ৷ ভোলায় ঘুর্ণিঝড় রিমেলে ক্ষতিগ্রস্ত ২৫০ পরিবারের মাঝে ১৫ লক্ষ টাকা বিতরণ করল কোস্ট ফাউন্ডেশন মোংলায় দিন দুপুরে দোকান ঘর ভাংচুর ও জবর দখলের চেষ্টা বর্তমান সরকার অসহায় দুস্থদের সরকার-মেয়র শেখ আ: রহমান জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় পরিকল্পনা আছে বটে, কিন্তু বাস্তবায়নে বাজেট নেই বাগেরহাটে কলেজ শিক্ষকদের বেসিক আইসিটি প্রশিক্ষণের সনদ প্রদান বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে ফকিরহাটের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানগণের শ্রদ্ধা নিবেদন

বেবি তরমুজ চাষে হাঁসি ফুটলো শাহজল ভাওয়ালের মুখে

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৩০ আগস্ট, ২০২২
  • ১৩৬ বার পঠিত

জেএম.মমিন,(বোরহানউদ্দিন)ভোলা সংবাদদাতা :
শাহজল ভাওয়াল। ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার সাচড়া গ্রামের বর্গাচাষি । ৪ছেলে ৪ মেয়ে নিয়ে তাদের সংসার। সবজি চাষ করে সংসার চালাতেন। উৎপাদন খরচ মিটিয়ে তেমন লাভবান হতে পারেনি। ভাগ্য পরিবর্তনে সিদ্ধান্ত বদল। সবজির সঙ্গে বারোমাসি ফল বেবি তরমুজের চাষ শুরু করেছেন তিনি। কীটপতঙ্গের আক্রমণ না থাকা, স্বল্প সময়ে ভালো ফলন এবং প্রত্যাশিত বাজার মূল্য পাওয়ায় তিনি বেশ সন্তুষ্ট। এখন বিভিন্ন গ্রামের চাষিরা তাঁর তরমুজের খেত দেখতে আসেন। লাভের কথা শুনে কয়েকজন কৃষক তার দেখাদেখি বেবি তরমুজ চাষ শুরু করছেন।
রবিবার (২৮ আগষ্ট) সকালে সরেজমিনে শাহজলের খেতে গিয়ে দেখা যায়, মাটি থেকে ১৫-২০ সেন্টিমিটার উঁচু লম্বা মাদা (বেড) তৈরি করে মালচিং পেপার (পলিথিনের মতো) দিয়ে শক্ত করে ঢেকে দেওয়া হয়েছে। চার হাত অন্তর একটি বেড। ১৬ শতাংশ জমির সবটা জাল দিয়ে নিখুঁত ভাবে বেড়া দেওয়া। উপরে ছাউনির মতো ঘুরিয়ে মাচা দেওয়া হয়েছে। সেই মাচায় লাউয়ের মতো ঝুলে আছে ছোট-বড় কালো তরমুজ। দেখতে বেশ সুন্দর। একটি তরমুজ কাটা হলো।ভেতরে লাল, বেশ রসাল ও সুমিষ্ট ফল।
শাহজল বলেন, গ্রামীণ জন উন্নয়ন সংস্থার (জিজেইউএস) কৃষিবিদের সহযোগিতা ও পরামর্শে তিনি এবার নিয়ে তৃতীয়বার বেবি তরমুজের আবাদ করেন। এখানে শারীরিক পরিশ্রম ছাড়া তেমন খরচ হয়নি। তিনি বাড়িতে বসেই ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছেন। এখন তিনি ৪র্থবার সুইট ব্লাক’ বা কালো জাত ও নতুন ‘গোল্ডেন ক্রাউন’ বা হলুদ তরমুজ লাগানোর কথা ভাবছেন। কারণ, এটি বেশ লাভজনক। ইতিমধ্যে ৬০টাকা দরে ৪ মন তরমুজ বিক্রয় করা হয়েছে। ক্ষেতে আরও ৫ মনের মতো হবে। তরমুজ চাষ করে বেশ ভালো আছি।
সাচড়া গ্রামে শাহজলের মতো চান মিঞা , তরমুজ চাষি, হানিফ, সালাউদ্দিন, আসাদুল্যাহ জানান, এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ব্লাকবেরি তরমুজের রোপন করা যায। ৬০ দিনের মধ্যে এ তরমুজের ফলন আসে। যেখানে সাধারণ তরমুজের ফলন আসতে সময় লাগে ১১০ থেকে ১২০ দিন। তারা জানান এবার ব্যাপক ফল এসেছে। প্রতি শতাংশ জমিতে ২৪০-২৫০ টাকা খরচ হয় ৷ যা থেকে সহজেই ৫ হাজার টাকার অধিক আয় করা যায় ।
বোরহানউদ্দিন কৃষি অফিস জানায়,ব্লাক বেবী জাতের তরমুজ উ”চতাপমাত্রা ও হঠাৎ বৃষ্টি সহ্য করে ভালো ফলন দেয়। এটি ভাইরাস মুক্ত তরমুজের জাত।
গ্রামীণ জন উন্নয়ন সংস্থার দরুন বাজার শাখার সহকারি ভ্যালু চেইন ফ্যাসালেটিটর ইকবাল আহমদ অভি জানান, ইফাদের অর্থায়নে গ্রামীণ জন উন্নয়ন সংস্থার বাস্তবায়নে প্রথম পর্যায়ে এবছর বোরহানউদ্দিন উপজেলার ৩০ জন কৃষকের মধ্যে বিনামূল্যে স্যার, বীজ, কীটনাশক, জাল, রশি ও নগদ অর্থ সহ তরমুজ চাষের সব উপকরণ দেওয়া হয় ৷ এর মধ্যে সাচড়া ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে ৮টি পয়ন্টে প্রায় ১২৮ শতাংশ জমিতে এই তরমুজ চাষ করা হয়েছে ৷
বেসরকারি সংস্থা গ্রামীণ জন উন্নয়ন সংস্থার (জিজেইউএস) সহকারী পরিচালক কৃষিবিদ আনিসুর রহমান টিপু বলেন, ১ বিঘা বা ৩৩ শতাংশ জমিতে এই তরমুজের আবাদ করতে সর্বোচ্চ ৪০-৪৫ হাজার টাকা খরচ হয়। ১ বিঘায় ১ হাজার ২০০ চারা বপন করা যায়।৭০ থেকে ৮০ দিনে বিঘা প্রতি সর্বনিম্ন ২ হাজার ৪০০ ফল (ওজনে ৫ থেকে সাড়ে ৫ মেট্রিক টন) উৎপাদন করা সম্ভব। সর্বনিম্ন ৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হলেও ২ থেকে আড়াই লাখ টাকা বিক্রি করা সম্ভব।
উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. এএইচএম শামীম বলেন, জলাবদ্ধতা হয় না, এমন ধরনের উঁচু জমি এই বারোমাসি তরমুজ চাষের উপযোগী। বারোমাসি বেবি তরমুজের আবাদ এখানকার কৃষকদের মধ্যে আগ্রহ সুষ্টি করছে।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা