1. admin@upokulbarta.news : admin :
রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৪৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বঙ্গবন্ধু না হলে আমরা বাংলার ভূ-খণ্ড দেখতাম না-এমপি শাওন ধামগড় ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির ৯ নং ওয়ার্ড পূর্নাঙ্গ কমিটি ঘোষণা শেখ হাসিনা ক্ষুধা ও দারিদ্র্মুক্ত সোনার বাংলা গড়ে তুলতে কাজ করে যাচ্ছেন- এমপি শাওন বরগুনা জেলার আমতলী থানা হতে র‌্যাবের হাতে ০১(এক)জন ইয়াবা ব্যবসায়ী গ্রেফতার। খুলনায় ‘উন্নয়নের সরণিতে পদ্মা সেতু’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন শিক্ষিত জাতি গঠনে শিক্ষক সমাজের দায়িত্ব সর্বাধিক। ৭৫’ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর খুনিরাই আবার ষড়যন্ত্রে নেমেছে- এমপি শাওন পটুয়াখালীতে সাংবাদিকের উপরে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন। লালমোহনে লিজা নামের এক কিশোরী নববধূ আত্মহত্যা বোরাহানউদ্দীনে বাংলাদেশ ক্যারিয়ার অলিম্পিয়াডের ভোলা জেলা মিটিং সম্পন্ন।

দশ বছরে পটুয়াখালীতে জনসংখ্যা বেড়েছে প্রায় দুই লাখ

জে
  • আপডেট সময় : শনিবার, ৩০ জুলাই, ২০২২
  • ২৪ বার পঠিত

গোপাল হালদার, পটুয়াখালীঃ

সরকারের পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের পরিসংখ্যান ব্যুরোর ৬ষ্ঠ জনশুমারীর প্রাথমিক তথ্য মোতাবেক পটুয়াখালী জেলায় বিগত দশ বছরে জনসংখ্যা বেড়েছে ১ লাখ ৯১ হাজার ৪০০জন।

২০১১ সালের আদম শুমারীর তথ্য মতে পটুয়াখালী জেলায় মোট জনসংখ্যা ছিলো ১৫ লাখ ৩৫ হাজার ৮শ ৫৪জন। এর মধ্যে নারী ৭ লাখ ৮২ হাজার ৪১৩জন এবং পুরুষ ৭ লাখ ৫৩ হাজার ৪৪১জন।

এবার ২০২২ সালের ৬ষ্ঠ জনশুমারীর প্রাথমিক তথ্য মোতাবেক জেলায় মোট জনসংখ্যা ১৭ লাখ ২৭ হাজার ২৫৪জন। এর মধ্যে নারীর সংখ্যা ৮ লাখ ৮৩ হাজার ৬৫৬জন এবং পুরুষের সংখ্যা ৮ লাখ ৪৩ হাজার ২৭ জন।

জেলায় লিঙ্গানুপাতে নারীর সংখ্যা বেড়েছে এক লাখ ১ হাজার ২৪৩জন ও পুরুষের সংখ্যা ৮৯ হাজার ৫৮৬জন। এছাড়াও জেলায় মোট ৯৩জন হিজড়া বা তৃতীয় লিঙ্গের জনসংখ্যা হিসেব করা হয়েছে।

এবার শুমারি রাত ১৪জুন রাত বারোটা থেকে ১৫ জুন সকাল ৬টার পর্যন্ত ধরে জনসংখ্যা হিসেবে করা হয়েছে। ষষ্ঠ জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২২-এর প্রাথমিক ফলাফল ২৭ জুলাই ঘোষণা করা হয়েছে।

পটুয়াখালী জেলা পরিসংখ্যান অফিসের উপপরিচালক মোঃ হাবিবুর রহমান বলেন, আমরা এখনও জেলা ও কমিউনিটি ভিত্তিক তথ্য পাইনি। জেলা রিপোর্ট এবং কমিউনিটি রিপোর্ট প্রকাশিত হলে আমরা গ্রাম/মহল্লা পর্যন্ত সূচকগুলোর তথ্য পাবো। তাহলে আমাদের আরও স্পষ্ট হতে পারবো।

তিনি আরও বলেন, জেলা সিরিজ Post Enumeration Check (পিইসি) এর পর প্রকাশিত হয় বিস্তারিত রিপোর্ট। এখন প্রাথমিক রিপোর্ট প্রকাশিত হলো। তাছাড়া পিইসি করার পর সকল ফিগারের তথ্য সমন্বয় হবে।

তিনি আরও বলেন, শুমারী পরবর্তী তথ্য যাচাই করা হয়। যেটা করে থাকে বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান (বিআইডিএস)। তাদের ফাইনাল রিপোর্টে সকল তথ্য সমন্বয় করা হবে।

তবে এখন আর গণনা করার কোন সুযোগ নেই। আমাদের এবারের শুমারিতে বাদ পড়ার হার একদম নগন্য। সংগৃহীত তথ্যে ভুলের মাত্রা কেমন তা পিইসিতে বের করা হবে। তার উপর ভিত্তিতে গণনাকৃত তথ্যে তা সমন্বয় করা হবে।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা