1. admin@upokulbarta.news : admin :
  2. bangladesh@upokulbarta.news : যুগ্ম সম্পাদক : যুগ্ম সম্পাদক
  3. bholasadar@upokulbarta.news : বার্তা সম্পাদক : বার্তা সম্পাদক
শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ১২:৫৬ অপরাহ্ন

কয়রায় গাছে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতিতা নারীর পাশে সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন

এম. এ. মান্নান বাবলু সাধারণ সম্পাদক ,সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন খুলনা মহানগর শাখা।
  • আপডেট সময় : শনিবার, ১৬ জুলাই, ২০২২
  • ১৪৪ বার পঠিত

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ

সম্প্রতি খুলনা জেলার কয়রা উপজেলার গিলাবাড়ি এলাকায় সন্তানদের সামনে মাকে গাছে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের ঘটনায় চিকিৎসাধীন ভিকটিম নারীকে অদ্য ১৬ জুলাই দুপুরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দেখতে যান সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন খুলনা মহানগর শাখার নেতৃবৃন্দ।

নির্যাতিতা ঐ নারীর স্বামী হাসপাতালে উপস্থিত মানবাধিকার নেতৃবৃন্দকে বলেন, গত ১১ জুলাই পারিবারিক জমিজমা সংক্রান্ত ঘটনায় ভিকটিম নারীর চাচা, চাচাতো ভাইসহ ২৫-৩০ জন লোক তার বাবার জমিতে ঘর তুলতে আসে। এ সময় ঐ নারী তাদের বাঁধা দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তার চাচাতো ভাইয়েরা তাকে বাড়ির পাশের মেহেগিনি গাছে বেঁধে বিবস্ত্র করে মারধর করেন।

সন্তানদের সামনে ঘন্টাব্যাপী ঐ নারীর ওপর তারা পাশবিক নির্যাতন চালায়। পরে ৯৯৯ থেকে ফোন পেয়ে পুলিশ গিয়ে নির্যাতিতা নারীকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে প্রেরণ করে। ঘটনার ১ দিন পর ঐ নারীর জ্ঞান ফেরে। হাসপাতালের বিছানায় এখনো তিনি কাতরাচ্ছেন।

নির্যাতিতা নারীর স্বামী মানবাধিকার নেতৃবৃন্দকে আরও জানান, এ ঘটনায় ১৫ জুলাই ১৪ জনকে আসামী করে থানায় মামলা করা হয়েছে এবং ২ জন আসামী গ্রেপ্তার হয়েছে। অন্য আসামীরা গ্রেপ্তার না হওয়ায় মামলা উঠিয়ে নেয়ার জন্য তাদেরকে হুমকি দিচ্ছে। তাদের পরিবার এখন চরম আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন এবং আসামীরা তাদের কলেজ পড়–য়া ছেলের ক্ষতি করতে পারে বলেও আশংকা করছেন।

সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন খুলনা মহানগর শাখার পক্ষ থেকে সভাপতি আলহাজ¦ গাজী আলাউদ্দিন আহমদ এর পরামর্শক্রমে হাসপাতালে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ¦ রোটাঃ সরদার আবু তাহের, সাধারণ সম্পাদক এম. এ. মান্নান বাবলু এবং প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাংবাদিক হাসানুর রহমান তানজির। এ সময় নেতৃবৃন্দ ভিকটিম নারীকে সংগঠনের তরফ থেকে চিকিৎসা ও আইনি সহায়তা প্রদানের আশ^াস দেন। একই সাথে মামলার অন্যান্য আসামীরা দ্রæত গ্রেপ্তার ও বিচারিক প্রক্রিয়ার মধ্যদিয়ে দায়িদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত হবে বলে প্রত্যাশা করেন।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা