1. admin@upokulbarta.news : admin :
রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৫০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বঙ্গবন্ধু না হলে আমরা বাংলার ভূ-খণ্ড দেখতাম না-এমপি শাওন ধামগড় ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির ৯ নং ওয়ার্ড পূর্নাঙ্গ কমিটি ঘোষণা শেখ হাসিনা ক্ষুধা ও দারিদ্র্মুক্ত সোনার বাংলা গড়ে তুলতে কাজ করে যাচ্ছেন- এমপি শাওন বরগুনা জেলার আমতলী থানা হতে র‌্যাবের হাতে ০১(এক)জন ইয়াবা ব্যবসায়ী গ্রেফতার। খুলনায় ‘উন্নয়নের সরণিতে পদ্মা সেতু’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন শিক্ষিত জাতি গঠনে শিক্ষক সমাজের দায়িত্ব সর্বাধিক। ৭৫’ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর খুনিরাই আবার ষড়যন্ত্রে নেমেছে- এমপি শাওন পটুয়াখালীতে সাংবাদিকের উপরে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন। লালমোহনে লিজা নামের এক কিশোরী নববধূ আত্মহত্যা বোরাহানউদ্দীনে বাংলাদেশ ক্যারিয়ার অলিম্পিয়াডের ভোলা জেলা মিটিং সম্পন্ন।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের আয়োজনে “মোংলা বন্দর কৌশলগত মাস্টার প্লান” কর্মশালার আয়োজন

সহকারী সম্পাদকঃ
  • আপডেট সময় : বুধবার, ৩০ মার্চ, ২০২২
  • ৩২ বার পঠিত

বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের আয়োজনে দুইদিনব্যাপী কর্মশালার আয়োজন করা হয়। বুধবার (৩০ মার্চ) সকাল ১০ টায় খুলনার সিটি ইন হোটেলে মোংলা বন্দরের জন্য কৌশলগত মাষ্টার প্ল্যান শীর্ষক এ কর্মশালার আয়োজন করা হয়। দুইদিনব্যাপী এ কর্মশালার ১ম দিনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসা।

এছাড়াও কনসালট্যান্ট, ইনরোস ল্যাকনার এসই মি. অগাস্টিন জোহানেস, কুয়েট প্রফেসর ড. কাজী হামিদুল বারী, ইনরোস ল্যাকনার এসই রালফ আলফ্রেড বেরেন্স, বন্দর কর্তৃপক্ষের অন্যান্য কর্মকর্তা, সিবিএসহ মোংলা কাষ্টমস প্রতিনিধি ও বন্দর ব্যবহারকারীগণ উপস্থিত ছিলেন। মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক আয়োজিত এ কর্মশালায় ব্রেমেন (জার্মানি) থেকে কনসালট্যান্ট ইনরোস ল্যাকনার এসই এবং তাদের অংশীদার স্ট্রাটেজিক প্লানিং অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট বন্দর ব্যবহারকারী সকল স্টেকহোল্ডার এবং ক্লায়েন্টদের কাছে মাষ্টার প্ল্যানটি উপস্থাপন করেন। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসা দীর্ঘদিন পর হলেও একটি স্ট্রাটেজিক মাষ্টার প্লান প্রণয়নে সংশ্লিষ্ট সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, এই পরিকল্পনা মোংলা বন্দরের একার পক্ষে বাস্তবায়ন সম্ভব হবে না।

বন্দর সংশ্লিষ্ট সরকারের অন্যান্য সংস্থা তথা সড়ক ও জনপথ বিভাগ, রেল কর্তৃপক্ষ, বিআইডব্লিউটিএ, বন ও পরিবেশ, জাতীয় নদী রক্ষা কমিশন,স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন, কাষ্টমস, বন্দর ব্যবহারকারীসহ সকল সংস্থার সহযোগীতার মাধ্যমেই এর বাস্তবায়ন সম্ভব হবে। মোংলা বন্দরের এই মাষ্টার প্লনের মুল লক্ষ্য জাতীয় উন্নয়ন পরিকল্পনার সাথে সংগতি রেখে কৌশলগত উন্নয়নের লক্ষ্যে ২০২৫ এর অর্জন এবং ডেল্টা প্ল্যান ২১০০ অর্জন, যাতে বন্দর জাতীয় অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারে। মোংলা বন্দরে রেল সংযোগ, পদ্মা সেতু এবং সড়ক ও রেলপথে আরও উন্নতির পাশাপাশি বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি এবং দেশের পশ্চিমাঞ্চলের উন্নয়নে বন্দরের সক্ষমতা অর্জনের মাধ্যমে ১৭.৮ মিলিয়ন টন কার্গো হ্যান্ডলিং ২০২৪/২৫-২০২৯/৩০ সালে ২৪.৯ মিলিয়ন টন এবং ২০৩৯/৪০ সালে ৪৭.৪ মিলিয়ন টনে উন্নিত করা হবে। ২০৭০/৭১ এবং ২০৯৯/১০০ সালে মোংলা বন্দরের ১০০ মিলিয়ন টন পর্যন্ত কার্গো হ্যান্ডলিং এবং দীর্ঘমেয়াদী অর্জন প্রত্যাশা করা যায়। মোংলা বন্দরের জন্য মাষ্টার প্লান হবে দক্ষ বন্দর সক্ষমতা বিকাশের জন্য একটি রোডম্যাপ।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা