1. admin@upokulbarta.news : admin :
রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ১০:০৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বঙ্গবন্ধু না হলে আমরা বাংলার ভূ-খণ্ড দেখতাম না-এমপি শাওন ধামগড় ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির ৯ নং ওয়ার্ড পূর্নাঙ্গ কমিটি ঘোষণা শেখ হাসিনা ক্ষুধা ও দারিদ্র্মুক্ত সোনার বাংলা গড়ে তুলতে কাজ করে যাচ্ছেন- এমপি শাওন বরগুনা জেলার আমতলী থানা হতে র‌্যাবের হাতে ০১(এক)জন ইয়াবা ব্যবসায়ী গ্রেফতার। খুলনায় ‘উন্নয়নের সরণিতে পদ্মা সেতু’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন শিক্ষিত জাতি গঠনে শিক্ষক সমাজের দায়িত্ব সর্বাধিক। ৭৫’ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর খুনিরাই আবার ষড়যন্ত্রে নেমেছে- এমপি শাওন পটুয়াখালীতে সাংবাদিকের উপরে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন। লালমোহনে লিজা নামের এক কিশোরী নববধূ আত্মহত্যা বোরাহানউদ্দীনে বাংলাদেশ ক্যারিয়ার অলিম্পিয়াডের ভোলা জেলা মিটিং সম্পন্ন।

ওয়াশ এসডিজি প্রোগ্রাম এর প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর এর ডরপ স্বপ্ন সৈকত পরিদর্শন

আঃ মান্নান, বরগুনা প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় : রবিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২২
  • ২৪৪ বার পঠিত
বরগুনা প্রতিনিধিঃ
 বরগুনা জেলার বরগুনা সদর উপজেলার নলটোনা ইউনিয়নে বঙ্গোপসাগরের তীরে পায়রা ও বিষখালী নদীর মোহনায় গোরা পদ্মা গ্রামে ডরপ প্রতিষ্ঠিত ডরপ স্বপ্ন সৈকত নামক পর্যটন স্পট পরিদর্শনে গত ২৫-০২-২০২২ ইং তারিখে আসেন ওয়াশ এসডিজি প্রোগ্রাম এর প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর ডাঃ সিলভানা ইসরাত।
এ সময় তার সাথে ওয়াশ এসডিজি প্রোগ্রামের জেলা সমন্বয়কারী এএনএম আশরাফ উদ্দিন ও ডরপ বরগুনার কর্মকর্তা ও কর্মীগন উপস্থিত ছিলেন। তিনি বরগুনা জেলার আমতলী ও পাথরঘাটা পৌরসভা এবং বরগুনা সদর উপজেলায় ওয়াশ এসডিজি প্রোগ্রাম পরিদর্শন এর অংশ হিসেবে সৈকত পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনে এসে এখানকার মনোরমন নৈসর্গিক পরিবেশে মুগ্ধ হন। এখানে প্রতিদিন অনেক মানুষ এসে এসে আনন্দ উপভোগ করে। এখানে ঘন বনায়ন রয়েছে।
এখানে জেলা পরিষদের একটি বাংলো রয়েছে। বাগানের মধ্যে ছাউনিসহ বসার টেবিল, শুধু টেবিল, খেলার মাঠ, জেলাপরিষদ কতৃক খননকৃত ঘাটলাসহ পুকুর ইত্যাদি। ভ্রমন পিপাষু মানুষ নিরাপদে ভ্রমন করতে পারে। ভ্রমন পিপাষু ও আশপাশের মানুষের সাথে কথা বলেন, মানুষ দাবী করে এখানে রিসোর্টসহ দৃষ্টি নন্দন পিকনিক স্পট করে দেওয়ার জন্য। তিনি ডরপ প্রতিষ্ঠিত স্বাপ্ন সৈকতের স্থান, খালার মাঠ, বাগানের ভিতরে দৃষ্টি নন্দন বৈঠকখানা, ঘাটলাসহ জেলা পরিষদের পুকুর, সাগরের তীর পর্যন্ত স্থানগুলি ঘুরে ঘুরে দেখেন। এই দৃষ্টি নন্দন স্থানটিতে কি ধরনের প্রতিষ্ঠান করা যায় ডরপ কতৃপক্ষের সাথে আলোচনা করবেন।
পাশাপাশি তিনি সরকারের নিকট এই সৈকত উন্নয়নের জন্য সুপারিশ করন। তিন আরো উল্লেখ করেন ২০১১ইং সালে ডরপ এর চেয়ারম্যান আজাহার আলী তালুকদার স্যার বরগুনা পৌরসভার সাবেক মেয়র এ্যাডভোকেট শাজাহানসহ সকল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, বরগুনা প্রেসক্লাবের সাংবাদিক, গন্যমান ব্যাক্তিগনকে নিয়ে পর্যটন উন্নয়নে কাজ করার আহবান জানান। যার ফলশ্রুতিতে এখানে পর্যটনউন্নয়নের কাজ চলছে। আমাদের ডরপ এর প্রতিষ্ঠাতা এএইচ এমএ নোমান স্যার এখান এসে তৎকালীন জেলা প্রসাশকের সাথে এর উন্নয়নে কিভাবে কাজ করা যায় আলোচনা করেছেন। তিনি সকল রকম সুযোগ সুবিধাসহ দৃষ্টি নন্দন পিকনিক স্পট তৈরির জন আগ্রহ প্রকাশ করেন। আমাদের বর্তমান সিইও যুবায়ের হাসান মহোদয় বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে সৈকত উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। প্রতি দিন ভ্রমন পিপাষু মানুষের পদচারণায় মুখরিত। আজ পরিদর্শনে এসে মনেহলো সাগরের পাশে এই দৃষ্টি নন্দন স্থানটিতে উপজেলা প্রসাশন, জেলা প্রসাশন ও মাননীয় সংসদ সদস্য মহোদয় নজর দিলে এই স্থাটি হয়ে উঠতে পারে বাংলাদেশের যে কোন দৃষ্টি নন্দন পর্যটন এলাকার মতো। বাগান থেকে সাগর পর্যন্ত ওভার ব্রীজ করা যেতে পারে, বাগানের মধ্য দিয়ে সাগর পর্যন্ত সুন্দর কয়েকটি রাস্তা করা যেতে পারে।
সাগরে ভ্রমনের জন্য দৃষ্টি নন্দন কয়েকটি ভ্রমন তরি তৈরি করা যেতে পারে। ২২ কিলো মিটর ঘন বনের মধ্যে শুকর আছে পাশাপাশি কিছু হরিন, বানর ছাড়া যেতে পারে। এ বনে পটুয়াখালী বনবিভাগের ওভার ব্রীজসহ পর্যটন এলাকা উন্নয়ন করার জন্য পরিকল্পনা ও বাজেট আছে। মাননীয় জেলা প্রসাশক মহোদয় বিষয়টির দিকে নজর দিলে কাজটি বাস্তবায়ন করা যেতে পারে। এস্থানটি বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন এর সাথে যুক্ত করা যেতে পারে। ডরপ স্বপ্ন সৈকতটি এমন জায়গায় অবস্থিত যেখান থেকে কুয়াকাটা যেতে সময় লাগে ১ ঘন্টা, পাতরার জঙ্গল, হরিণঘাটা, দুবলারচর খুব কাছাকাছি এমনকি সন্দর বনও বেশি দূর নয়। এখান থেকে বাইনোকুলারের মাধ্যমে সুন্দর বন দেখা যায়। ডরপ স্বপ্ন সৈকত এলাকাটিকে পর্যটন জোন ঘোষনা করলে এখান থেকে সবকয়টি পর্যটন এলাকায় ঘুরে আশা যায় অল্প সময়ের মধ্যে।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা