1. admin@upokulbarta.news : admin :
মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:৫৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
মোংলায় বীর মুক্তিযোদ্ধা কালীপদ রায়কে গার্ড অব অনার বন্দরে স্বেচ্ছাসেবকদের নিয়ে প্যালিয়েটিভ কেয়ার বিষয়ে সভা অনুষ্ঠিত মনপুরায় ‘মিডওয়াইফ পরিচালিত স্বাস্থ্যসেবা’ প্রকল্পের সমাপনী ও লার্নিং শেয়ারিং কর্মশালা সিদ্ধিরগঞ্জে তাঁতখানা এ্যাথলেটিক্স ক্লাবের উদ্যোগে, শর্টপিচ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট সিজন (১) ২০২৪ উদ্বোধন হয়েছে বাইউস্ট ট্রাস মাস্টার অনুষ্ঠিত পথ হারিয়ে ৯৯৯ এ ফোন, ৩১ পর্যটককে উদ্ধার করল পুলিশ আজ পবিত্র শবেবরাত শবে বরাতের আমল ও ফজিলত পশ্চিম চর উমেদ ইউপি নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে সাধারণ মানুষের পাশে থাকার প্রত্যয় সালাম হাওলাদারের পশ্চিম চর উমেদ ইউপি নির্বাচন উঠান বৈঠক নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন যুব নেতা শাকিল

শেখ হেলালের সময়ে উন্নয়নের ছোঁয়ায় বদলে গেছে ফকিরহাট

আহসান টিটু, বাগেরহাট :
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ১৬৭ বার পঠিত

বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলায় ১৫ বছরে অবকাঠামো, কৃষি, মৎস্য, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, ক্রীড়া, সড়ক ও ভৈরব নদী খনন সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ব্যপক উন্নয়ন ঘটেছে। আওয়ামী লীগ সরকার আমলে শেখ হেলালের সময়ে এই উন্নয়ন হয়েছে বলে সাধারন জনগন জানান। সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দীনের আস্থাভাজন ও ফকিরহাট উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান স্বপন দাশের প্রচেষ্টায় ফকিরহাটে প্রত্যেকটি সূচকে সংখ্যাগত ও গুণগত উন্নয়ন সাধিত হয়েছে।

ফকিরহাট, মোল্লাহাট ও চিতলমারী এই তিন উপজেলা নিয়ে বাগেরহাট-১ আসন। এই আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দীন। এ পর্যন্ত তিনি এই আসনে ৫ বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে ফকিরহাট উপজেলায় সকল ক্ষেত্রে উন্নয়নের ছোয়া লেগেছে। শিক্ষা, সংস্কৃতি, জলাবদ্বা নিরসন, ড্রেনেজ ব্যবস্থা, কাঁচা রাস্তা পাকাকরণ, বিদ্যুৎ. ইটের সলিং সংস্কারসহ ডিজিটাল সেবা কার্যক্রমসহ উন্নয়ন কাজে ভূমিকা রেখে যাচ্ছেন। উপজেলা থেকে শুরু করে গ্রাম, সবখানেই লেগেছে উন্নয়নের ছোয়া। স্বাস্থ্য, শিক্ষা, বিদ্যুৎ, নিরাপত্তা, সড়ক, যোগাযোগ ব্যবস্থা ও অবকাঠামোসহ সবখানেই ঘটেছে আমূল পরিবর্তন। সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের কারণে উৎপাদন করা কৃষিপণ্য এবং চিংড়িসহ বিভিন্ন মাছ সহজে বাজারজাত করতে পারছে।
ফকিরহাট উপজেলার হতদরিদ্রদের স্বল্পমুল্যে নানাভাবে খাদ্য সহায়তা দিচ্ছেন আওয়ামী লীগ সরকার। বর্তমান সময়ে সব শ্রেণি-পেশার মানুষের অর্থনৈতিক উন্নয়ন ঘটেছে। তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে উপজেলা জুড়ে। এই উপজেলায় শতভাগ মানুষকে করোনার ভ্যাকসিনের আওতায় আনা হয়েছে। কৃষি ক্ষেত্রেও এই উপজেলায় ব্যাপক সফলতা রয়েছে।

বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার বেশকয়েকজন নারী-পুরুষের সঙ্গে কথা হলে তারা জানান, আগে তাদের এলাকায় অনেক জায়গা কাদামাটির রাস্তা ছিল। বাড়িতে বিদ্যুৎ ব্যবস্থা ছিল না। এখন তাদের এলাকায় পিচঢালা রাস্তার ওপর দিয়ে বিভিন্ন ধরণের যানবাহন চলাচল করে। এলাকার সব বাড়িতেই বিদ্যুতের আলো জ্বলে। ভূমি ও গৃহহীন পরিবারগুলো সরকারের দেওয়া ভূমিসহ পাকাবাড়িতে বসবাস করছে। সরকারের ধারাবাহিক উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ খুঁশির কথাই জানালেন।

এবার বাগেরহাট-১ আসনে ৬জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দীতা করছেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের শেখ হেলাল উদ্দিন এমপি (নৌকা), জাতীয় পার্টির মো. কামরুজ্জামান (লাঙ্গল), তৃনমূল বিএনপির মাহফুজুর রহমান (সোনালী আঁশ), বাংলাদেশ ন্যাশনাল মুভমেন্ট (বিএনএম)-এর মো. মঞ্জুর হোসেন শিকদার (নোঙ্গর), ন্যাশনাল পিপলস পার্টির বাসুদেব গুহ (আম), বাংলাদেশ কংগ্রেস-এর আতাউর রহমান আতিকী (ডাব প্রতিক) নিয়ে নির্বাচনে লড়ছেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি স্বপন দাশ বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে ফকিরহাট দেশের মধ্যে স্মার্ট ফকিরহাটে উন্নীত হয়েছে। এ উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে মানুষ আবার আওয়ামী লীগকে নির্বাচতি করবে। এ লক্ষ্যে আমরা প্রতিটি ওয়ার্ডে নৌকার পক্ষে ৪৫টি সেন্টার কমিটি ও মহিলা আওয়ামী লীগ ৭২টি উঠান বৈঠক করেছি। এছাড়া ৭২টি উন্মুক্ত ওয়ার্ড সভা করা হয়েছে। রাস্তাঘাটে ও বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারদের কাছে লিফলেট বিলি করছেন নেতা-কর্মীরা। আওয়ামী লীগের সরকার উন্নয়নের সরকার। তাই এবারও বিপুল ভোটে নৌকার জয় হবে বলে জানান তিনি।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা