1. admin@upokulbarta.news : admin :
মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ১২:১৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
পদত্যাগ করলেন সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার খাজরা ইউপি চেয়ারম্যান শাহনেওয়াজ ডালিম পাঁচ দিন পর শুরু হলো সাতক্ষীরার ভোমরায় আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের ইবিএ প্রকল্পে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ প্লাস্টিকের ভিড়ে বিলুপ্ত ঐতিহ্যবাহী মৃৎশিল্প লালমোহনে ছলিমউদ্দিন তালুকদার ফাউন্ডেশনের ঈদ পুর্নমিলনী অনুষ্ঠিত শেখ হেলাল উদ্দীন সরকারি কলেজে বর্ণাঢ্য আয়োজনে বর্ষবরণ উৎসব উদযাপন তন্বীর প্রেমে পড়ে ঢাকার সুবর্ণা মোংলায় কুমিল্লার মহেশপুর শাহী ঈদগাহে নামাজ অনুষ্ঠিত বোরহানউদ্দিনের তিন গ্রামে ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত বিধবা নারীকে ঘর করে দিলেন সমাজসেবক রাজিব হায়দার

ফকিরহাটে ডিলারের বিরুদ্ধে চাল কম দেয়ার অভিযোগ

বাগেরহাট প্রতিনিধি:
  • আপডেট সময় : বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০২৩
  • ৩৮৩ বার পঠিত

বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার মূলঘরে খাদ্য বান্ধব কর্মসুচির ফেয়ার প্রাইজের চাল গ্রাহকদের কম দেয়ার অভিযোগ উঠেছে ডিলারের বিরুদ্ধে।

একাধিক ভুক্তভোগী জানান, গ্রাহক অর্থাৎ কার্ডধারীরা ১৫ টাকা কেজি দরে প্রতি ৩০ কেজি করে চাল নিতে পারবেন। গত শনিবার উপজেলার মূলঘর ইউনিয়নের ৫, ৬ ও ৭ নং ওয়ার্ডে এসব কার্ডধারী গ্রাহকদের এক সাথে দুই মাসের চাল দেয়া হয়। কিন্তু কিছু গ্রাহকের অভিযোগ প্রতি ৩০ কেজির বস্তায় ১ থেকে ৩কেজি পর্যন্ত চাল কম পাওয়া গেছে। এসব গ্রাহকরা ডিলারের নিকট থেকে চাল নিয়ে বাইরে এসে দেখেন তাদের চাল কম হয়েছে। তখন গ্রাহকরা মূলঘর ইউপি চেয়ারম্যান এড. হিটলার গোলদার ও স্থানীয় ইউপি সদস্য বিধান কুমার মোহন্ত কে জানান।

বিষয়টি জানার পর জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত হয়ে এসব গ্রাহকদের চাল পুনরায় মাপ দিয়ে সত্যতা নিশ্চিত হন।

অভিযুক্ত ডিলার সঞ্জিত মন্ডল জানান, শ্রমিকরা চাল মাপার সময় ডিজিটাল মাপযন্ত্রটি অসমতল স্থানে রাখায় এমনটি হয়েছে। তিনি স্বেচ্ছায় চাল কম দেননি। বিষয়টি জেনে ইতোমধ্যে তিনি ভুক্তভোগী পরিবারকে চাল ফেরত দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছেন।

এ ব্যাপারে মূলঘর ইউপি চেয়ারম্যান এড. হিটলার গোলদার বলেন, কার্ডধারী গ্রাহকদের কাছে খবর পেয়ে তিনি আসেন। এসময় তিনি কয়েকজন গ্রাহকের চাল মেপে দেখেন ৩০ কেজির স্থলে ২ থেকে ৩ কেজি চাল কম হয়েছে। একই কথা বলেন ইউপি সদস্য বিধান কুমার মোহন্ত। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করবেন বলে তারা জানান।

এ বিষয়ে সাক্ষাতকারের জন্য উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা দিপঙ্কর কুমার মন্ডলের অফিস ও মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা