1. admin@upokulbarta.news : admin :
  2. bangladesh@upokulbarta.news : যুগ্ম সম্পাদক : যুগ্ম সম্পাদক
  3. bholasadar@upokulbarta.news : বার্তা সম্পাদক : বার্তা সম্পাদক
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৪:০৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দেশ ও জাতির কল্যাণে দোয়া ঈদ উপলক্ষে রেমালে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে খাদ্য বিতরণ করলো মাহাবুবা মতলেব তালুকদার ফাউন্ডেশন ৷ ভোলায় ঘুর্ণিঝড় রিমেলে ক্ষতিগ্রস্ত ২৫০ পরিবারের মাঝে ১৫ লক্ষ টাকা বিতরণ করল কোস্ট ফাউন্ডেশন বর্তমান সরকার অসহায় দুস্থদের সরকার-মেয়র শেখ আ: রহমান জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় পরিকল্পনা আছে বটে, কিন্তু বাস্তবায়নে বাজেট নেই বাগেরহাটে কলেজ শিক্ষকদের বেসিক আইসিটি প্রশিক্ষণের সনদ প্রদান বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে ফকিরহাটের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানগণের শ্রদ্ধা নিবেদন সাতক্ষীরায় নাগরিক সংলাপ জলবায়ু সংকটে নিপতিত সাতক্ষীরায় বাসযোগ্য ও পরিকল্পিত নগর গড়ে তোলার আহবান মানারাতুল উম্মাহ মডেল মাদরাসার অভিভাবক সমাবেশ ও সবক অনুষ্ঠান মোহনপুরে পিজি সদস্যদের পোল্ট্রি খাদ্য ও উপকরন বিতরণ

বাজেট প্রতিক্রিয়া: আসন্ন ঘাটতি বাজেটে জনগণের সেবা হ্রাসের আশংকা

ডেস্ক নিউজঃ
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ২ জুন, ২০২৩
  • ৮১ বার পঠিত
HD1080: Aridity - drop water falls from the fountain

ডেস্ক রিপোর্টঃ
প্রস্তাবিত বাজেটে পানি ও স্যানিটেশন খাতে বরাদ্দ বৃদ্ধি করে স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়ন এবং দারিদ্র বিমোচনে সরকারের আরও অগ্রসর ভূমিকা রাখার প্রত্যাশা সকলের।”
জাতীয় সংসদে গত বৃহস্পতিবার (১ জুন ২০২৩) ২০২৩-২৪ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপনের পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় এমন মন্তব্য করেছে বেসরকারি উন্নয়ন সংগঠন ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন অব দি রুরাল পুয়র (ডর্‌প)।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সংগঠনটির পক্ষে উপ-নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ যোবায়ের হাসান বলেন, এবারের বাজেট বড় ঘাটতির বাজেট। মূল্যস্ফীতির কারণে কাঙ্খিত উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন বাধাগ্রস্ত হতে পারে, সেবামূলক খাতসমূহতেও এর প্রভাব পড়বে। নানামুখী আভ্যন্তরীণ সম্পদ আহরণ বৃদ্ধি এবং করজাল যদি বিস্তত না করা হয় তাহলে বাজেট ঘাটতি মোকাবেলা করা মুশকিল হতে পারে।
তিনি উল্লেখ করেন যেহেতু পানি ও স্যানিটেশন সংক্রান্ত উন্নয়ন প্রকল্পগুলো জনগণের মৌলিক সেবা যেমন স্বাস্থ্য খাতের সাথে সংশ্লিষ্ট তাই এ খাতটিতে পর্যাপ্ত বরাদ্দ একান্তভাবে জরুরি।
বাজেটে মৌলিক সেবা খাতে পর্যাপ্ত বরাদ্দ ও তার যথাযথ ব্যবস্থাপনা না হলে অন্যান্য উন্নয়ন খাতগুলোতেও এর প্রভাব পড়বে। তাই ন্যায্যতা, প্রয়োজনীয়তা এবং অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বাজেট বরাদ্দ নিশ্চিত করতে হবে।
বাজেট ঘাটতি মোকাবেলায় মোহাম্মদ যোবায়ের হাসান ডর্‌প এর পক্ষে বেশ কয়েকটি সুপারিশ তুলে ধরেন। এগুলো হল, ভোগ ব্যয় কমিয়ে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বাজেট বরাদ্দ করা; আভ্যন্তরীণ সম্পদ আহরণ বৃদ্ধি করা; করজাল বিস্তৃত করা; আমদানীনির্ভরতা কমিয়ে উৎপাদন বৃদ্ধি করা এবং প্রয়োজনীয় ব্যয় সংকোচন নীতিমালা গ্রহণ করা।
তিনি মন্তব্য করেন ২০৩০ সাল নাগাদ টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট ৬ অর্জন করতে হলে বর্তমান বরাদ্দ ১২ হাজার কোটি টাকা থেকে বাড়িয়ে ২২ হাজার কোটি টাকা করতে হবে।
উল্লেখ্য যে, পরিকল্পনা কমিশন কর্তৃক প্রণীত ফাইন্যান্স স্ট্র্যাটেজি অন এসডিজি ২০১৭ প্রতিবেদন অনুযায়ী ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট অর্জন করতে প্রতিবছর অতিরিক্ত ব্যয় ১০ হাজার কোটি টাকা হারে বৃদ্ধির সুপারিশ করা হয়েছে।
ডর্‌প এর উপ-নির্বাহী পরিচালক আরও বলেন এবারের বাজেটে এই বৃদ্ধির উদ্যোগ নেয়া হলে আগামী বছরগুলোতেও এর প্রতিফলন দেখা যাবে।
উল্লেখ্য, গতকার ২০২৩-২৪ অর্থবছরের জন্য ৭ লাখ ৬১ হাজার ৭৮৫ কোটি টাকার প্রস্তাবিত বাজেট অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।
বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে জাতীয় সংসদ ভবনের মন্ত্রিসভা কক্ষে দুপুরে অনুষ্ঠিত বিশেষ বৈঠকে মন্ত্রিসভা নতুন অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট অনুমোদন দেওয়া হয়।
বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় শুরু হতে যাওয়া অধিবেশনে এই বাজেট পেশ করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এর আগে রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন বাজেট পেশের সুপারিশ করেন।
এ বছর দেশের ৫২তম ও আওয়ামী লীগ সরকারের ২৪তম বাজেট উপস্থাপনা করা হবে। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এবার তার চতুর্থ বাজেট উপস্থাপন করবেন। এটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের চলমান মেয়াদের সর্বশেষ বাজেট।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা